ঢাকা ১১:২১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২৩, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ডেটিং অ্যাপে মনের মানুষ খুঁজতে গিয়ে লাখ টাকা খোয়ালেন এক তরুণী

ডেটিং অ্যাপে

অনলাইনে মিথ্যে ফাঁদ পেতে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনা প্রায় প্রতি দিনই ঘটছে। সম্প্রতি তার পুনরাবৃত্তি ঘটল।

ডেটিং অ্যাপে অ্যাকাউন্ট খুলে মেলেনি মনের মানুষ খুঁজতে গিয়ে এক লাখ টাকা খোয়ালেন এক তরুণী। পেশায় তিনি এক জন গবেষক।

কয়েক মাস আগে ‘বাম্বল’-এ একটা অ্যাকাউন্ট খুলেছিলেন তিনি। কিন্তু সেই অ্যাকাউন্টটি যে খুব বেশি সক্রিয় ছিল, তা নয়।

কিছু দিন আগে অয়নকুমার জর্জ নামে এক ব্যক্তি ওই তরুণীকে মেসেজ করেন। অয়ন নিজেকে লন্ডনের চিকিৎসক বলে পরিচয় দেন। কথা বলার পর ওই তরুণীর অয়নকে ভালো লাগে।

একে অপরের সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরের আদানপ্রদান হয়। হোয়াট্‌সঅ্যাপে গল্প করা ছাড়াও ফোনেও কথাবার্তা হত। কয়েক দিন রাত জেগে গল্পগুজবের পর ওই তরুণী বুঝতে পারেন, তিনি উল্টো দিকের মানুষটির প্রেমে পড়ে গিয়েছেন। সরাসরি না বললে হাবভাবে তিনি তা অয়নকে বুঝিয়েও দেন। আর তার পরেই অয়ন মোক্ষম চালটি চালেন।

ওই তরুণীকে অয়ন এক দিন ফোন করে জানান, তিনি মাকে সঙ্গে নিয়ে লন্ডন থেকে ফিরছেন। কিন্তু তার কাছে কোনো টাকা নেই। তিনি তরুণীকে অনুরোধ করেন, তার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে লাখখানেক মতো টাকা পাঠাতে।

বিমানবন্দরে নেমেই সেই টাকা চেকে ফিরিয়ে দেবেন বলেও কথা দেন। ওই তরুণী বিশ্বাস করে তাকে এক লাখ টাকা দেন।

নির্ধারিত দিনে সময়মতো বিমানবন্দরে আসেন ওই তরুণী। কিন্তু সময় পেরিয়ে গেলেও তিনি অয়নকে দেখতে পাচ্ছিলেন না। প্রথমে খানিক চিন্তিত হয়েই ফোন করেন।

কিন্তু ফোন বন্ধ ছিল। বহু বার ফোন করেও ফোনে পাননি তিনি।পরে বুঝতে পারেন, তিনি প্রতারণার শিকার হয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় থানায় মামলা করেন।

আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

নগরীতে প্রতিবন্ধীদের মাঝে সহায়ক উপকরণ বিতরণ   

ডেটিং অ্যাপে মনের মানুষ খুঁজতে গিয়ে লাখ টাকা খোয়ালেন এক তরুণী

আপডেট সময় ০৬:২৮:৩৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ৮ নভেম্বর ২০২৩

অনলাইনে মিথ্যে ফাঁদ পেতে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনা প্রায় প্রতি দিনই ঘটছে। সম্প্রতি তার পুনরাবৃত্তি ঘটল।

ডেটিং অ্যাপে অ্যাকাউন্ট খুলে মেলেনি মনের মানুষ খুঁজতে গিয়ে এক লাখ টাকা খোয়ালেন এক তরুণী। পেশায় তিনি এক জন গবেষক।

কয়েক মাস আগে ‘বাম্বল’-এ একটা অ্যাকাউন্ট খুলেছিলেন তিনি। কিন্তু সেই অ্যাকাউন্টটি যে খুব বেশি সক্রিয় ছিল, তা নয়।

কিছু দিন আগে অয়নকুমার জর্জ নামে এক ব্যক্তি ওই তরুণীকে মেসেজ করেন। অয়ন নিজেকে লন্ডনের চিকিৎসক বলে পরিচয় দেন। কথা বলার পর ওই তরুণীর অয়নকে ভালো লাগে।

একে অপরের সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরের আদানপ্রদান হয়। হোয়াট্‌সঅ্যাপে গল্প করা ছাড়াও ফোনেও কথাবার্তা হত। কয়েক দিন রাত জেগে গল্পগুজবের পর ওই তরুণী বুঝতে পারেন, তিনি উল্টো দিকের মানুষটির প্রেমে পড়ে গিয়েছেন। সরাসরি না বললে হাবভাবে তিনি তা অয়নকে বুঝিয়েও দেন। আর তার পরেই অয়ন মোক্ষম চালটি চালেন।

ওই তরুণীকে অয়ন এক দিন ফোন করে জানান, তিনি মাকে সঙ্গে নিয়ে লন্ডন থেকে ফিরছেন। কিন্তু তার কাছে কোনো টাকা নেই। তিনি তরুণীকে অনুরোধ করেন, তার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে লাখখানেক মতো টাকা পাঠাতে।

বিমানবন্দরে নেমেই সেই টাকা চেকে ফিরিয়ে দেবেন বলেও কথা দেন। ওই তরুণী বিশ্বাস করে তাকে এক লাখ টাকা দেন।

নির্ধারিত দিনে সময়মতো বিমানবন্দরে আসেন ওই তরুণী। কিন্তু সময় পেরিয়ে গেলেও তিনি অয়নকে দেখতে পাচ্ছিলেন না। প্রথমে খানিক চিন্তিত হয়েই ফোন করেন।

কিন্তু ফোন বন্ধ ছিল। বহু বার ফোন করেও ফোনে পাননি তিনি।পরে বুঝতে পারেন, তিনি প্রতারণার শিকার হয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় থানায় মামলা করেন।