ঢাকা ০৪:০৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে গুজব প্রতিরোধের বিকল্প নেই – বিভাগীয় কমিশনার

ফাইল ছবি।

বিভাগীয় কমিশনার জি এস এম জাফরউল্লাহ্, এনডিসি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়েছি। তাঁর পরিকল্পনা অনুযায়ী, আমরা ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ব। এ জন্য গুজব প্রতিরোধের কোনো বিকল্প নেই।

আজ বুধবার (২২ মার্চ) দুপুরে বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে রাজশাহী আঞ্চলিক তথ্য অফিস (পিআইডি)-র আয়োজনে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ ও গুজব প্রতিরোধ’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে তিনি এসব কথা বলেন।

বিভাগীয় কমিশনার বলেন, আমাদের দেশের উন্নয়ন অপ্রতিরোধ্য গতিতে চলছে। এখন আমাদের খেয়াল রাখতে হবে, গুজবের কারণে যেন পিছিয়ে না পড়ি। এটা সঠিকভাবে চললে ২০৪১ সালের অনেক আগেই আমরা গন্তব্যে পৌঁছে যাব।
খাদ্যঘাটতি নিয়ে বিভিন্ন সময় গুজব ছড়ানো হয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, চালসহ যথেষ্ট খাদ্যদ্রব্য মজুত আছে; যা অন্যান্যবছরের তুলনায় অনেক বেশি; অথচ, গুজবের মাধ্যমে ছড়ানো হয় বাংলাদেশে খাদ্যঘাটতি রয়েছে।

মাহে রমজান উপলক্ষ্যে পণ্যের মূল্যবৃদ্ধি প্রসঙ্গে জি এস এম জাফরউল্লাহ্ বলেন, সামনে রমজান মাস, এ মাসে দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে মিটিং করতে হয়। পৃথিবীর কোনো মুসলিম দেশে তা করতে হয় না। অন্যান্য মুসলিম দেশের মানুষরা জানে রমজান মাস আসলে পণ্যের দাম কমবে। আমাদের দেশে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী আছে, যারা মূল্যবৃদ্ধির গুজব ছড়ায়। তাদের সংখ্যা খুব একটা বেশি না। আমাদের সবাইকে এর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।আবার অনেক সময় দেখা যায়, দাম বাড়বে এই ভয়ে অনেকে চাহিদার বেশি পণ্য কিনে থাকে, যারফলে বাজারে পণ্যের সংকট তৈরি হয়। এই কারণে অনেক সময় পণ্যের দাম বৃদ্ধি পায়।

তিনি আরও বলেন, ধর্মীয় উৎসবের সময় সরকারের বিভিন্ন কাজের গুজব সৃষ্টি করে একশ্রেণির মানুষ। এদের বিরুদ্ধেও আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।

গণমাধ্যমকর্মীদের সমাজের দর্পণ উল্লেখ করে মতবিনিময় সভায়জি এস এম জাফরউল্লাহ্বলেন, অবাধ তথ্য প্রবাহের যুগে যদি আমরা গুজব প্রতিরোধ করতে না পারি, তাহলে অনেক সম্ভাবনা নষ্ট হয়ে যাবে।এ জন্য তিনি সবার আগে গণমাধ্যমকর্মীদের গুজব প্রতিরোধে এগিয়ে আসার আহ্ববান জানান।

অনুষ্ঠানে‚ ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত বাংলাদেশ স্মার্ট বাংলাদেশের একটি পিলার হতে পারেমন্তব্য করে বিভাগীয় কমিশনারভ‚মিহীন ও গৃহহীন মানুষকে জমিসহ ঘর প্রদানের জন্যপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্রয়ণ প্রকল্পের ভ‚য়সী প্রশংসা করেন।

মতবিনিময় সভায় বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দস্মার্ট বাংলাদেশবিনির্মাণে গুজব প্রতিরোধেরগুরুত্ব উল্লেখ করে ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার আলোকে তাঁদের সুচিন্তিত মত প্রকাশ করেন।
অনুষ্ঠানের শুরুতে স্মার্ট বাংলাদেশ ও গুজব প্রতিরোধ বিষয়ে পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনা করেন আঞ্চলিক তথ্য অফিস, রাজশাহীর উপপ্রধান তথ্য অফিসার মোঃ তৌহিদুজ্জামান।

উপপ্রধান তথ্য অফিসারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) মো: ইমতিয়াজ হোসেন, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) এ, এন, এম, মঈনুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার বিভাগের পরিচালক মো: এনামুল হক, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (আইসিটি) ড. মোঃ মোকছেদ আলী উপস্থিত ছিলেন। সভায় বিভাগীয় প্রশাসন, পিআইডি’র কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। জেলা তথ্য অফিসের উপপরিচালক নাফেয়েলা নাসরীন প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন আঞ্চলিক তথ্য অফিস, রাজশাহীর সিনিয়র তথ্য অফিসার তাজকিয়া আকবারী।

আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

মিডিয়া তালিকাভুক্ত জাতীয় দৈনিক নববাণী পত্রিকার জন্য সকল জেলা উপজেলায় সংবাদ কর্মী আবশ্যকঃ- আগ্রহীরা আজই আবেদন করুন। মেইল: 24nababani@gmail.com
জনপ্রিয় সংবাদ

পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ঢাকা জেলা জাতীয় শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান শাহাবুদ্দিন আহমেদ।

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে গুজব প্রতিরোধের বিকল্প নেই – বিভাগীয় কমিশনার

আপডেট সময় ০৬:১৭:৫১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মার্চ ২০২৩

বিভাগীয় কমিশনার জি এস এম জাফরউল্লাহ্, এনডিসি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়েছি। তাঁর পরিকল্পনা অনুযায়ী, আমরা ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ব। এ জন্য গুজব প্রতিরোধের কোনো বিকল্প নেই।

আজ বুধবার (২২ মার্চ) দুপুরে বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে রাজশাহী আঞ্চলিক তথ্য অফিস (পিআইডি)-র আয়োজনে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ ও গুজব প্রতিরোধ’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে তিনি এসব কথা বলেন।

বিভাগীয় কমিশনার বলেন, আমাদের দেশের উন্নয়ন অপ্রতিরোধ্য গতিতে চলছে। এখন আমাদের খেয়াল রাখতে হবে, গুজবের কারণে যেন পিছিয়ে না পড়ি। এটা সঠিকভাবে চললে ২০৪১ সালের অনেক আগেই আমরা গন্তব্যে পৌঁছে যাব।
খাদ্যঘাটতি নিয়ে বিভিন্ন সময় গুজব ছড়ানো হয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, চালসহ যথেষ্ট খাদ্যদ্রব্য মজুত আছে; যা অন্যান্যবছরের তুলনায় অনেক বেশি; অথচ, গুজবের মাধ্যমে ছড়ানো হয় বাংলাদেশে খাদ্যঘাটতি রয়েছে।

মাহে রমজান উপলক্ষ্যে পণ্যের মূল্যবৃদ্ধি প্রসঙ্গে জি এস এম জাফরউল্লাহ্ বলেন, সামনে রমজান মাস, এ মাসে দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে মিটিং করতে হয়। পৃথিবীর কোনো মুসলিম দেশে তা করতে হয় না। অন্যান্য মুসলিম দেশের মানুষরা জানে রমজান মাস আসলে পণ্যের দাম কমবে। আমাদের দেশে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী আছে, যারা মূল্যবৃদ্ধির গুজব ছড়ায়। তাদের সংখ্যা খুব একটা বেশি না। আমাদের সবাইকে এর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।আবার অনেক সময় দেখা যায়, দাম বাড়বে এই ভয়ে অনেকে চাহিদার বেশি পণ্য কিনে থাকে, যারফলে বাজারে পণ্যের সংকট তৈরি হয়। এই কারণে অনেক সময় পণ্যের দাম বৃদ্ধি পায়।

তিনি আরও বলেন, ধর্মীয় উৎসবের সময় সরকারের বিভিন্ন কাজের গুজব সৃষ্টি করে একশ্রেণির মানুষ। এদের বিরুদ্ধেও আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।

গণমাধ্যমকর্মীদের সমাজের দর্পণ উল্লেখ করে মতবিনিময় সভায়জি এস এম জাফরউল্লাহ্বলেন, অবাধ তথ্য প্রবাহের যুগে যদি আমরা গুজব প্রতিরোধ করতে না পারি, তাহলে অনেক সম্ভাবনা নষ্ট হয়ে যাবে।এ জন্য তিনি সবার আগে গণমাধ্যমকর্মীদের গুজব প্রতিরোধে এগিয়ে আসার আহ্ববান জানান।

অনুষ্ঠানে‚ ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত বাংলাদেশ স্মার্ট বাংলাদেশের একটি পিলার হতে পারেমন্তব্য করে বিভাগীয় কমিশনারভ‚মিহীন ও গৃহহীন মানুষকে জমিসহ ঘর প্রদানের জন্যপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্রয়ণ প্রকল্পের ভ‚য়সী প্রশংসা করেন।

মতবিনিময় সভায় বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দস্মার্ট বাংলাদেশবিনির্মাণে গুজব প্রতিরোধেরগুরুত্ব উল্লেখ করে ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার আলোকে তাঁদের সুচিন্তিত মত প্রকাশ করেন।
অনুষ্ঠানের শুরুতে স্মার্ট বাংলাদেশ ও গুজব প্রতিরোধ বিষয়ে পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনা করেন আঞ্চলিক তথ্য অফিস, রাজশাহীর উপপ্রধান তথ্য অফিসার মোঃ তৌহিদুজ্জামান।

উপপ্রধান তথ্য অফিসারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) মো: ইমতিয়াজ হোসেন, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) এ, এন, এম, মঈনুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার বিভাগের পরিচালক মো: এনামুল হক, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (আইসিটি) ড. মোঃ মোকছেদ আলী উপস্থিত ছিলেন। সভায় বিভাগীয় প্রশাসন, পিআইডি’র কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। জেলা তথ্য অফিসের উপপরিচালক নাফেয়েলা নাসরীন প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন আঞ্চলিক তথ্য অফিস, রাজশাহীর সিনিয়র তথ্য অফিসার তাজকিয়া আকবারী।