ঢাকা ০১:৫৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

শেখ হাসিনার কর্মীরা পরাভব মানে না : আসাদ

জননেত্রী শেখ হাসিনার কর্মীরা কখনও পরাভাব মানে না

রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার কর্মীরা কখনও পরাভাব মানে না। রোববার বিকেলে রাজশাহীর পবা উপজেলার নওহাটা বাজারে গণসংযোগ শেষে পথসভায় তিনি একথা কথা বলেন।
তিনি বলেন, ভয় পাবেন না। ভয় পাওয়ার কোন কারণ নেই। আমাদের লোক অনেক বেশি। বাংলাদেশের সর্বশেষ জনমত জরিপে এখনো ৭০ শতাংশ মানুষ বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে সমর্থন করে। আগামী নির্বাচনে তাকে ভোট দেওয়ার জন্য অপেক্ষা করছে তারা। যতই ষড়যন্ত্র আসুক, যতই বাধা আসুক শেখ হাসিনার কর্মীরা পরাভব মানে না।
আসাদ বলেন, আবারও ষড়যন্ত্র চলছে, সন্ত্রাস চলছে, আবারও আমাদের প্রিয় মাতৃভূমির জন্মকালের চেতনা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা হুমকির মুখে। আবারও আমাদের পতাকা হুমকির মুখে। তাই এখনই শপথ নিন, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ ও আমাদের পতাকা পাকিস্তানের বন্ধুদের হাতে আমরা তুলে দেব না। শেখ হাসিনা আমাদের আস্থার বিশ্বাসযোগ্য ঠিকানা। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা এগিয়ে যাব, আগামী নির্বাচনেও বিজয়ের বন্দরে পৌঁছাবো। যতকিছুই করুক, সকল ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে বিজয়ের বন্দরে আমরা পৌঁছাবো।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ফারুক হোসেন ডাবলু, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রিড়া বিষয়ক সম্পাদক মুস্তাক আহমেদ, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য শরিফুল ইসলাম, জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলি আজম সেন্টু, নওহাটা পৌর আওয়ামী লীগ নেতা বাবুল হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা ফারুক, মনসুর রহমান, বড়গাছি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের  সাধারণ সম্পাদক ফারুক রহমান, বড়গাছি ইউনিয়ান আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল আল মামুন, শহিদুল ইসলাম, শফিকুল ইসলাম মেম্বার, পারিলা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল বারী ভুলু, পারিলা ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ফাহিমা বেগম, হুজুরি পাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা, হুজুরি পাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আব্দুর রফিক , রাজশাহী জেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি রিয়াজ মাস্টার, সহ-সভাপতি আলমগীর মোরশেদ রঞ্জু, হরিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইদুর রহমান বাদল ও সাধারণ সম্পাদক পান্না আলি, হরিপুর আওয়ামী লীগ নেতা রেজাউল ইসলাম, দামকুড়া আওয়ামী লীগ নেতা বাবুল হোসেন, হড়গ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা হেলাল উদ্দিন, রাজশাহী জেলা পরিষদের সদস্য শিউলি রানী, নওহাটা পৌরসভার ১নং সাবেক সাধারণ সম্পাদক সুবল কুমার  সাহা, দুই নাম্বার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান , ৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আজাদ আলী, ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ মন্টু আলী, আওয়ামী লীগ নেতা ফারুক হোসেন,  মোহনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা এনামুল হক, সুলতান মাস্টার, বেল্লা আলি, আজাদ আলি, প্রভাষক সাইদুর রহমান, আফসার আলী প্রামানিক, ঘাসিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আফজাল হোসেন বকুল, মৌগাছি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হোসেন আলী, মোহনপুর উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি মুজিবুর মাস্টার, সাধারণ সম্পাদক মিলন মাস্টার, নওহাটা পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি তানভীর আলী, সাধারণ সম্পাদক রোমেল, রাজশাহী জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি প্রবাসক আব্দুর রশিদ  আলীসহ পবা উপজেলার আটটি ইউনিয়ন ও দুটো পৌরসভার এবং মোহনপুর উপজেলার ছয়টি ইউনিয়ন একটি পৌরসভার  আওয়ামী লীগ যুবলীগ ছাত্রলীগ এবং সকল সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় রাসিক মেয়র ‘বঙ্গবন্ধু ভাষা আন্দোলনের মাধ্যমে স্বাধীনতার বীজ বোপন করেছিলেন’

শেখ হাসিনার কর্মীরা পরাভব মানে না : আসাদ

আপডেট সময় ০৭:৩৩:০৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ নভেম্বর ২০২৩
রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার কর্মীরা কখনও পরাভাব মানে না। রোববার বিকেলে রাজশাহীর পবা উপজেলার নওহাটা বাজারে গণসংযোগ শেষে পথসভায় তিনি একথা কথা বলেন।
তিনি বলেন, ভয় পাবেন না। ভয় পাওয়ার কোন কারণ নেই। আমাদের লোক অনেক বেশি। বাংলাদেশের সর্বশেষ জনমত জরিপে এখনো ৭০ শতাংশ মানুষ বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে সমর্থন করে। আগামী নির্বাচনে তাকে ভোট দেওয়ার জন্য অপেক্ষা করছে তারা। যতই ষড়যন্ত্র আসুক, যতই বাধা আসুক শেখ হাসিনার কর্মীরা পরাভব মানে না।
আসাদ বলেন, আবারও ষড়যন্ত্র চলছে, সন্ত্রাস চলছে, আবারও আমাদের প্রিয় মাতৃভূমির জন্মকালের চেতনা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা হুমকির মুখে। আবারও আমাদের পতাকা হুমকির মুখে। তাই এখনই শপথ নিন, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ ও আমাদের পতাকা পাকিস্তানের বন্ধুদের হাতে আমরা তুলে দেব না। শেখ হাসিনা আমাদের আস্থার বিশ্বাসযোগ্য ঠিকানা। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা এগিয়ে যাব, আগামী নির্বাচনেও বিজয়ের বন্দরে পৌঁছাবো। যতকিছুই করুক, সকল ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে বিজয়ের বন্দরে আমরা পৌঁছাবো।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ফারুক হোসেন ডাবলু, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রিড়া বিষয়ক সম্পাদক মুস্তাক আহমেদ, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য শরিফুল ইসলাম, জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলি আজম সেন্টু, নওহাটা পৌর আওয়ামী লীগ নেতা বাবুল হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা ফারুক, মনসুর রহমান, বড়গাছি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের  সাধারণ সম্পাদক ফারুক রহমান, বড়গাছি ইউনিয়ান আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল আল মামুন, শহিদুল ইসলাম, শফিকুল ইসলাম মেম্বার, পারিলা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল বারী ভুলু, পারিলা ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ফাহিমা বেগম, হুজুরি পাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা, হুজুরি পাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আব্দুর রফিক , রাজশাহী জেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি রিয়াজ মাস্টার, সহ-সভাপতি আলমগীর মোরশেদ রঞ্জু, হরিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইদুর রহমান বাদল ও সাধারণ সম্পাদক পান্না আলি, হরিপুর আওয়ামী লীগ নেতা রেজাউল ইসলাম, দামকুড়া আওয়ামী লীগ নেতা বাবুল হোসেন, হড়গ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা হেলাল উদ্দিন, রাজশাহী জেলা পরিষদের সদস্য শিউলি রানী, নওহাটা পৌরসভার ১নং সাবেক সাধারণ সম্পাদক সুবল কুমার  সাহা, দুই নাম্বার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান , ৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আজাদ আলী, ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ মন্টু আলী, আওয়ামী লীগ নেতা ফারুক হোসেন,  মোহনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা এনামুল হক, সুলতান মাস্টার, বেল্লা আলি, আজাদ আলি, প্রভাষক সাইদুর রহমান, আফসার আলী প্রামানিক, ঘাসিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আফজাল হোসেন বকুল, মৌগাছি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হোসেন আলী, মোহনপুর উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি মুজিবুর মাস্টার, সাধারণ সম্পাদক মিলন মাস্টার, নওহাটা পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি তানভীর আলী, সাধারণ সম্পাদক রোমেল, রাজশাহী জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি প্রবাসক আব্দুর রশিদ  আলীসহ পবা উপজেলার আটটি ইউনিয়ন ও দুটো পৌরসভার এবং মোহনপুর উপজেলার ছয়টি ইউনিয়ন একটি পৌরসভার  আওয়ামী লীগ যুবলীগ ছাত্রলীগ এবং সকল সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।