ঢাকা ০৬:৩৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

ফাইল ছবি।

বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে ৬৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। বুধবার (৬ জুলাই) সকাল থেকে এ উদযাপন অনুষ্ঠান শুরু হয়৷দিবসটি উপলক্ষে সকালেই জাতীয় সংগীত, বেলুন ফেস্টুন, পায়রা অবমুক্ত ও আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শোভাযাত্রা শেষে সকলকে শুভেচ্ছা জানিয়ে উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় জ্ঞান সৃজন ও সঞ্চালনের জায়গা। সময়ের সাথে এই জ্ঞানের পরিবর্তন হয়ে থাকে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা ও গবেষণা গুণগত মান সমৃদ্ধর জন্য বিভিন্ন ধরণের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ৫০ বছরের মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করে সেই লক্ষ্যে কাজ শুরু হয়েছে। আশা করি এ বিশ্ববিদ্যালয়ও একদিন বিশ্বমানের জ্ঞানচর্চার তীর্থস্থলে পরিণত হবে।
উপাচার্য আরো বলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ৬৯ বছরে বহু কৃতি ও গুণি শিক্ষার্থী বের হয়েছেন। পরবর্তীতে তাঁরা দেশের সার্বিক উন্নয়ন মেধার স্বাক্ষর রেখেছেন। তাছাড়া বর্তমানেও শিক্ষার্থীদের দক্ষ মানবসম্পদে রূপান্তর করার পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য পূরণে সর্বাত্মক চেষ্টা অব্যবহত রেখেছে প্রশাসন।
এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্যদ্বয় অধ্যাপক সুলতান-উল ইসলাম ও অধ্যাপক চৌধুরী মোহাম্মদ জাকারিয়া, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক আব্দুল সালাম, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক অবাইদুর ইসলাম প্রামানিক, প্রক্টর অধ্যাপক আসাবুল হক, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রদীপ কুমার পাণ্ডে, ছাত্র উপদেষ্টা তারেক নূরসহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকতা, কর্মচারী, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, ১৯৫৩ সালের ৩১ মার্চ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়। একই বছরের ৬ জুলাই আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করে দেশের শ্রেষ্ঠতম এ বিদ্যাপীঠ। এবছর ৬৯তম বছর অতিক্রম করে গৌরব ও ঐতিহ্যের ৭০ বছরে পদার্পণ করল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়।
জনপ্রিয় সংবাদ

মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে – ডেপুটি স্পীকার

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

আপডেট সময় ০২:৫৪:৪০ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ জুলাই ২০২২
বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে ৬৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। বুধবার (৬ জুলাই) সকাল থেকে এ উদযাপন অনুষ্ঠান শুরু হয়৷দিবসটি উপলক্ষে সকালেই জাতীয় সংগীত, বেলুন ফেস্টুন, পায়রা অবমুক্ত ও আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শোভাযাত্রা শেষে সকলকে শুভেচ্ছা জানিয়ে উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় জ্ঞান সৃজন ও সঞ্চালনের জায়গা। সময়ের সাথে এই জ্ঞানের পরিবর্তন হয়ে থাকে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা ও গবেষণা গুণগত মান সমৃদ্ধর জন্য বিভিন্ন ধরণের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ৫০ বছরের মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করে সেই লক্ষ্যে কাজ শুরু হয়েছে। আশা করি এ বিশ্ববিদ্যালয়ও একদিন বিশ্বমানের জ্ঞানচর্চার তীর্থস্থলে পরিণত হবে।
উপাচার্য আরো বলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ৬৯ বছরে বহু কৃতি ও গুণি শিক্ষার্থী বের হয়েছেন। পরবর্তীতে তাঁরা দেশের সার্বিক উন্নয়ন মেধার স্বাক্ষর রেখেছেন। তাছাড়া বর্তমানেও শিক্ষার্থীদের দক্ষ মানবসম্পদে রূপান্তর করার পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য পূরণে সর্বাত্মক চেষ্টা অব্যবহত রেখেছে প্রশাসন।
এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্যদ্বয় অধ্যাপক সুলতান-উল ইসলাম ও অধ্যাপক চৌধুরী মোহাম্মদ জাকারিয়া, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক আব্দুল সালাম, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক অবাইদুর ইসলাম প্রামানিক, প্রক্টর অধ্যাপক আসাবুল হক, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রদীপ কুমার পাণ্ডে, ছাত্র উপদেষ্টা তারেক নূরসহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকতা, কর্মচারী, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, ১৯৫৩ সালের ৩১ মার্চ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়। একই বছরের ৬ জুলাই আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করে দেশের শ্রেষ্ঠতম এ বিদ্যাপীঠ। এবছর ৬৯তম বছর অতিক্রম করে গৌরব ও ঐতিহ্যের ৭০ বছরে পদার্পণ করল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়।