ঢাকা ০৩:১১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  রাজশাহীর বেলপুকুর (আরএমপি) থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান  একজন সফল পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে

রাজশাহীর বেলপুকুর থানার ওসি মনিরুজ্জামানের তৎপরতায় জনমনে প্রশান্তি

শাহ্ সোহানুর রহমান,

  রাজশাহীর বেলপুকুর (আরএমপি) থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান  একজন সফল পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে । ২০২১ সালের ৬ অক্টোবর প্রথম অফিসার ইনচার্জ হিসেবে বেলপুকুর থানায়  যোগদান করেন তিনি।
বেলপুকুর থানায় যোগদানের পর থেকে নিজ যোগ্যতা আর দক্ষতার বলে সচেতন ও সাধারণ এলাকাবাসীর মন জয় করেছেন তিনি। সেই সাথে একজন সফল ওসি হিসেবে যত গুণাবলী প্রয়োজন তা তিনি দেখাতে সক্ষম হয়েছেন। বেলপুকুর থানায় যোগদানের পর থেকে থানা এলাকা থেকে টাউট-বাটপার ও দালালদের দৌরাত্ম বন্ধ হয়েছে। পুলিশী সেবা গ্রহীতাদের এখন আর দূর্ভোগ পোহাতে হয় না। মাদক, সন্ত্রাস এবং জঙ্গীবাদ বিরোধী অভিযানেও সফল হয়েছেন বেলপুকুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুজ্জামান।
ধনী-গরীব সবার জন্য ওসির দরজা সব সময় উন্মোক্ত করেছেন তিনি। সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, মাদক ব্যবসা, ডাকাতি, চুরি, ছিনতাইসহ সকল অপরাধের বিরুদ্ধে সোচ্চার ভুমিকা পালন করছেন ওসি।
বেলপুকুর   থানা এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে আলাপ কালে মনিরুজ্জামান  বলেন, মানুষের সেবা ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা করা আমার দায়িত্ব।
সব শেষ ৫ম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীদের দেয়া কথা রেখেছেন বেলপুকুর থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান।  তিনি আসার পরেও অনিয়ম ও কারচুপির গুঞ্জন চলছিলো সর্বত্র।
কিন্তু ৫ম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৫ জানুয়ারি বুধবার সকাল থেকে ফলাফল নির্ধারিত হওয়া পর্যন্ত কোনো রকম সহিংসতা ও কারচুপির অভিযোগ তুলতে পারেনি কোনো দলের  প্রার্থী বা সমর্থকরা। যার দরুন এলাকায় সুনামের জোয়ারে ভাসছেন মনিরুজ্জামান নামটি।
অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান বলেন,  এই ক্ষমতার মধ্যে নিহিত দায়িত্ব যথাযথ পালনের মাধ্যমেই সম্ভব অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করাই ছিলো আমার লক্ষ ও প্রতিশ্রুতি।
সম্প্রতি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন বিগত নির্বাচনের তুলনায় ভালো হলেও, আদর্শ নির্বাচনের মানদণ্ডে তা যথেষ্ট নয়। এই নির্বাচনগুলোকে কেন্দ্র করে যে সমস্ত অভিযোগ আছে, সেগুলো হলো এক প্রার্থী দ্বারা অন্য প্রার্থীকে নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা প্রদান।  কিন্তু থানা হওয়ার পরে এখানে প্রতিটি নির্বাচনে সহিংসতা ও জোরজবরদস্তির ঘটনা ঘটেছে।  কিন্তু আমি এসে সকল প্রার্থী ও জনগণকে বুঝিয়েছি। নির্বাচনে কোনো রকম সহিংসতা করার বিষয়ে নিষধ করেছি। সবশেষ কোনো সহিংসতা ছাড়ায় সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন শেষ করেছি।
ওসির এই অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ দ্বায়িত্ব পালনকে সাধুবাদ জানিয়েছে বেলপুকুর ইউনিয়নের সকল প্রার্থী ও জনসাধারণ।
এছাড়া বেলপুকুরের নেতারা জানান, অতিতের যে কোন সময়ের চেয়ে বর্তমানে থানা পুলিশের সদস্যরা মাদক, জুয়া নির্মূলসহ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়নে অনেক বেশী তৎপর ভাবে কাজ করছে।  যে কোন সময়ে পুলিশের সহযোগিতা চাইলে আন্তরিকতার সাথে জনগণকে সহযোগিতা করছেন বর্তমান ওসি মনিরুজ্জামান। প্রতিনিধিগন পুলিশের কাজে জনগনকে আরও আন্তরিকতার সাথে  সহযোগিতা করার আহবান জানান ।বেলপুকুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বাবর হোসেন  ওসি মনিরুজ্জামানের দায়িত্ব ও ভূমিকার প্রশংসা করে বলেন, মাদক ও জুয়া নির্মুলে পুলিশ তৎপর রয়েছে।অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান বলেন,  পুলিশের কোন সদস্যও যদি মাদক ও জুয়ার সঙ্গে জড়িত থাকে সে ক্ষেত্রে তাকেও ছাড় দেওয়া হবে না। তিনি আগামীর সুন্দর সমাজ গঠনে মাদক ও জুয়ামুক্ত বেলপুকুর গঠনে সকলকে আন্তরিক ভাবে সহযোগিতার আহবান জানান।
জনপ্রিয় সংবাদ

দ্রুত সময়ে কোরবানির বর্জ্য অপসারণ বিষয়ে বিভাগীয় প্রধানদের সাথে রাসিক মেয়রের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

  রাজশাহীর বেলপুকুর (আরএমপি) থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান  একজন সফল পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে

রাজশাহীর বেলপুকুর থানার ওসি মনিরুজ্জামানের তৎপরতায় জনমনে প্রশান্তি

আপডেট সময় ০৮:০৩:০৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৪ মার্চ ২০২২
  রাজশাহীর বেলপুকুর (আরএমপি) থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান  একজন সফল পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে । ২০২১ সালের ৬ অক্টোবর প্রথম অফিসার ইনচার্জ হিসেবে বেলপুকুর থানায়  যোগদান করেন তিনি।
বেলপুকুর থানায় যোগদানের পর থেকে নিজ যোগ্যতা আর দক্ষতার বলে সচেতন ও সাধারণ এলাকাবাসীর মন জয় করেছেন তিনি। সেই সাথে একজন সফল ওসি হিসেবে যত গুণাবলী প্রয়োজন তা তিনি দেখাতে সক্ষম হয়েছেন। বেলপুকুর থানায় যোগদানের পর থেকে থানা এলাকা থেকে টাউট-বাটপার ও দালালদের দৌরাত্ম বন্ধ হয়েছে। পুলিশী সেবা গ্রহীতাদের এখন আর দূর্ভোগ পোহাতে হয় না। মাদক, সন্ত্রাস এবং জঙ্গীবাদ বিরোধী অভিযানেও সফল হয়েছেন বেলপুকুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুজ্জামান।
ধনী-গরীব সবার জন্য ওসির দরজা সব সময় উন্মোক্ত করেছেন তিনি। সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, মাদক ব্যবসা, ডাকাতি, চুরি, ছিনতাইসহ সকল অপরাধের বিরুদ্ধে সোচ্চার ভুমিকা পালন করছেন ওসি।
বেলপুকুর   থানা এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে আলাপ কালে মনিরুজ্জামান  বলেন, মানুষের সেবা ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা করা আমার দায়িত্ব।
সব শেষ ৫ম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীদের দেয়া কথা রেখেছেন বেলপুকুর থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান।  তিনি আসার পরেও অনিয়ম ও কারচুপির গুঞ্জন চলছিলো সর্বত্র।
কিন্তু ৫ম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৫ জানুয়ারি বুধবার সকাল থেকে ফলাফল নির্ধারিত হওয়া পর্যন্ত কোনো রকম সহিংসতা ও কারচুপির অভিযোগ তুলতে পারেনি কোনো দলের  প্রার্থী বা সমর্থকরা। যার দরুন এলাকায় সুনামের জোয়ারে ভাসছেন মনিরুজ্জামান নামটি।
অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান বলেন,  এই ক্ষমতার মধ্যে নিহিত দায়িত্ব যথাযথ পালনের মাধ্যমেই সম্ভব অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করাই ছিলো আমার লক্ষ ও প্রতিশ্রুতি।
সম্প্রতি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন বিগত নির্বাচনের তুলনায় ভালো হলেও, আদর্শ নির্বাচনের মানদণ্ডে তা যথেষ্ট নয়। এই নির্বাচনগুলোকে কেন্দ্র করে যে সমস্ত অভিযোগ আছে, সেগুলো হলো এক প্রার্থী দ্বারা অন্য প্রার্থীকে নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা প্রদান।  কিন্তু থানা হওয়ার পরে এখানে প্রতিটি নির্বাচনে সহিংসতা ও জোরজবরদস্তির ঘটনা ঘটেছে।  কিন্তু আমি এসে সকল প্রার্থী ও জনগণকে বুঝিয়েছি। নির্বাচনে কোনো রকম সহিংসতা করার বিষয়ে নিষধ করেছি। সবশেষ কোনো সহিংসতা ছাড়ায় সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন শেষ করেছি।
ওসির এই অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ দ্বায়িত্ব পালনকে সাধুবাদ জানিয়েছে বেলপুকুর ইউনিয়নের সকল প্রার্থী ও জনসাধারণ।
এছাড়া বেলপুকুরের নেতারা জানান, অতিতের যে কোন সময়ের চেয়ে বর্তমানে থানা পুলিশের সদস্যরা মাদক, জুয়া নির্মূলসহ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়নে অনেক বেশী তৎপর ভাবে কাজ করছে।  যে কোন সময়ে পুলিশের সহযোগিতা চাইলে আন্তরিকতার সাথে জনগণকে সহযোগিতা করছেন বর্তমান ওসি মনিরুজ্জামান। প্রতিনিধিগন পুলিশের কাজে জনগনকে আরও আন্তরিকতার সাথে  সহযোগিতা করার আহবান জানান ।বেলপুকুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বাবর হোসেন  ওসি মনিরুজ্জামানের দায়িত্ব ও ভূমিকার প্রশংসা করে বলেন, মাদক ও জুয়া নির্মুলে পুলিশ তৎপর রয়েছে।অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান বলেন,  পুলিশের কোন সদস্যও যদি মাদক ও জুয়ার সঙ্গে জড়িত থাকে সে ক্ষেত্রে তাকেও ছাড় দেওয়া হবে না। তিনি আগামীর সুন্দর সমাজ গঠনে মাদক ও জুয়ামুক্ত বেলপুকুর গঠনে সকলকে আন্তরিক ভাবে সহযোগিতার আহবান জানান।