ঢাকা ০৯:২৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজশাহীর আলোচিত সানি হত্যা মামলার আরও ২ জন গ্রেফতার 

ফাইল ছবি।

রাজশাহীতে আলোচিত সানি হত্যা মামলার আরও ২ আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৫ এর একটি দল। বৃহস্পতিবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, রাজশাহী নগরীর হেতেমখাঁ এলাকার শফিকের ছেলে শাহী (১৯) ও একই এলাকার মৃত সোহেলের ছেলে রাহিম (১৯)।
প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সানি হত্যার পরপরই আসামীরা বিভিন্ন পথে বাংলাদেশের সীমান্ত অতিক্রমের চেষ্টা করে। পরে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় ব্যর্থ হয়ে স্থানীয় পরিবহনের মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জে আশ্রয় গ্রহণ করে।
এরপর গোপন সূত্রের ভিত্তিতে র‍্যাব-৫ এর একটি দল অভিযান পরিচালনা করে ঢাকা মহানগরীর শ্যামলী থেকে শাহীকে আটক করে। পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রাহিমকে গ্রেপ্তার করা হয়।
এর আগে ঘটনার ২৪ ঘন্টা পর আমিন (১৮) নামে এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছিলো রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানা পুলিশ।
সানি হত্যা মামলার অন্যান্য আসামিরা হলেন, মুহিন ওরফে আন্নাফ, তার মা রাজশাহী মহানগর মহিলা দলের ক্রীড়া সম্পাদক বিথী, সিফাত, রাহিম, সোহরাব খান লাল, শাহী, শিউলি ও অনিম।
প্রসঙ্গত, গত রোববার (৩ জুলাই) রাত ৯টার দিকে সানি তার এক বন্ধুকে চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের দিকে নিয়ে আসলে পূর্ব শত্রুতার জেরে মুহিম তার দলবল নিয়ে সানিকে তুলে নিয়ে যায়।
পরে তাকে হেতেমখাঁ সবজি পাড়া এলাকায় একটি বাড়ির সামনের রাস্তায় উপর্যপুরী কোপানো ও পেটানো হয়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহত অবস্থায় সানিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রাজশাহীর গোদাগাড়ী বালু মহলের অনিয়মবন্ধে ও দুর্নীতি বন্ধে ডিসি বরাবর অভিযোগ

রাজশাহীর আলোচিত সানি হত্যা মামলার আরও ২ জন গ্রেফতার 

আপডেট সময় ০৫:৪৫:২১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ জুলাই ২০২২
রাজশাহীতে আলোচিত সানি হত্যা মামলার আরও ২ আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৫ এর একটি দল। বৃহস্পতিবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, রাজশাহী নগরীর হেতেমখাঁ এলাকার শফিকের ছেলে শাহী (১৯) ও একই এলাকার মৃত সোহেলের ছেলে রাহিম (১৯)।
প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সানি হত্যার পরপরই আসামীরা বিভিন্ন পথে বাংলাদেশের সীমান্ত অতিক্রমের চেষ্টা করে। পরে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় ব্যর্থ হয়ে স্থানীয় পরিবহনের মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জে আশ্রয় গ্রহণ করে।
এরপর গোপন সূত্রের ভিত্তিতে র‍্যাব-৫ এর একটি দল অভিযান পরিচালনা করে ঢাকা মহানগরীর শ্যামলী থেকে শাহীকে আটক করে। পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রাহিমকে গ্রেপ্তার করা হয়।
এর আগে ঘটনার ২৪ ঘন্টা পর আমিন (১৮) নামে এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছিলো রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানা পুলিশ।
সানি হত্যা মামলার অন্যান্য আসামিরা হলেন, মুহিন ওরফে আন্নাফ, তার মা রাজশাহী মহানগর মহিলা দলের ক্রীড়া সম্পাদক বিথী, সিফাত, রাহিম, সোহরাব খান লাল, শাহী, শিউলি ও অনিম।
প্রসঙ্গত, গত রোববার (৩ জুলাই) রাত ৯টার দিকে সানি তার এক বন্ধুকে চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের দিকে নিয়ে আসলে পূর্ব শত্রুতার জেরে মুহিম তার দলবল নিয়ে সানিকে তুলে নিয়ে যায়।
পরে তাকে হেতেমখাঁ সবজি পাড়া এলাকায় একটি বাড়ির সামনের রাস্তায় উপর্যপুরী কোপানো ও পেটানো হয়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহত অবস্থায় সানিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।