ঢাকা ০৬:০৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাজশাহীতে ১০ শর্তে ৩০ মামলার ২৬ শিশু আসামির বিকল্প সাজা

ফাইল ছবি।

রাজশাহীতে ৩০ মামলার রায়ে ২৬ শিশু আসামিকে ১০ শর্তে ছয় মাস মেয়াদে প্রবেশন দিয়েছে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-২। মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের বিচারক মুহা. হাসানুজ্জামান এই আদেশ দেন। সাজাপ্রাপ্ত আসামীদের মধ্যে ২৫ জন ছেলে ও একজন মেয়ে।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী নাসরিন আক্তার মিতা বলেন, মাদক পরিবহণ ও ধর্ষণ চেষ্টাসহ বিভিন্ন মামলা ছিলো ওই ২৬ শিশুর বিরুদ্ধে। তাদের সবারই এটি প্রথম মামলা।

তিনি বলেন, আর কোন দিন তারা এ ধরনের অপরাধে জড়াবে না শপথ পাঠ করেছে। একই সঙ্গে তাদের দুইটি করে ভালো কাজ করার নির্দেশে দিয়েছেন আদলত। রায় কার্যকরের এই বিষয়টি সমাজসেবা প্রবেশনারি অফিসারকে মনিটরিং করতেও বলা হয়েছে। প্রতি দুই মাস পর পর তাদের বিষয়ে আদালতে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। আগামী বছরের ১৫ মে তারা মামলা থেকে অব্যাহতি পাবে।

তিনি বলেন, বিকল্প পন্থায় তাদের সংশোধনের সুযোগ দিয়েছে আদালত। বাংলাদেশে প্রথম এক সাথে এত বেশি শিশুকে এই রকমের দণ্ড দেয়া হলো। তাদের মেন্টাল চেঞ্জের কারণেই এমন রায় দিয়েছেন আদলত।

রাজশাহী সমাজসেবা প্রবেশনারী অফিসার মতিনুর রহমান বলেন, আদালতে এটি একটি ভালো আদেশ দিয়েছেন। আদালত ওই শিশুদের অপরাধের ধরণ দেখে ভালো কাজ কী কী করবে সেটি ঠিক করতে বলেছেন। এছাড়াও তাদেরকে মাদকে না জড়ানো, বাল্য বিবাহ না করা, পিতা-মাতার সাথে সদ্য ব্যবহার করার, মারামারিতে জড়ানো এসব ধরনের কাজ থেকে রিবত থাকতে বলেছেন।

তিনি বলেন, এটি একটি বিরল রায়। এর আগে কখনও এটি হয়নি। রাজশাহীতে প্রথম এই ধরনের রায়ের ব্যবহার হলো। আমার এখন তাদের মনিটরিং করবো ও তাদের আরও ভালো কাজগুলো ঠিক করে দেবো।

আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে – ডেপুটি স্পীকার

রাজশাহীতে ১০ শর্তে ৩০ মামলার ২৬ শিশু আসামির বিকল্প সাজা

আপডেট সময় ০৬:৫৬:৩৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৫ নভেম্বর ২০২২

রাজশাহীতে ৩০ মামলার রায়ে ২৬ শিশু আসামিকে ১০ শর্তে ছয় মাস মেয়াদে প্রবেশন দিয়েছে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-২। মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের বিচারক মুহা. হাসানুজ্জামান এই আদেশ দেন। সাজাপ্রাপ্ত আসামীদের মধ্যে ২৫ জন ছেলে ও একজন মেয়ে।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী নাসরিন আক্তার মিতা বলেন, মাদক পরিবহণ ও ধর্ষণ চেষ্টাসহ বিভিন্ন মামলা ছিলো ওই ২৬ শিশুর বিরুদ্ধে। তাদের সবারই এটি প্রথম মামলা।

তিনি বলেন, আর কোন দিন তারা এ ধরনের অপরাধে জড়াবে না শপথ পাঠ করেছে। একই সঙ্গে তাদের দুইটি করে ভালো কাজ করার নির্দেশে দিয়েছেন আদলত। রায় কার্যকরের এই বিষয়টি সমাজসেবা প্রবেশনারি অফিসারকে মনিটরিং করতেও বলা হয়েছে। প্রতি দুই মাস পর পর তাদের বিষয়ে আদালতে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। আগামী বছরের ১৫ মে তারা মামলা থেকে অব্যাহতি পাবে।

তিনি বলেন, বিকল্প পন্থায় তাদের সংশোধনের সুযোগ দিয়েছে আদালত। বাংলাদেশে প্রথম এক সাথে এত বেশি শিশুকে এই রকমের দণ্ড দেয়া হলো। তাদের মেন্টাল চেঞ্জের কারণেই এমন রায় দিয়েছেন আদলত।

রাজশাহী সমাজসেবা প্রবেশনারী অফিসার মতিনুর রহমান বলেন, আদালতে এটি একটি ভালো আদেশ দিয়েছেন। আদালত ওই শিশুদের অপরাধের ধরণ দেখে ভালো কাজ কী কী করবে সেটি ঠিক করতে বলেছেন। এছাড়াও তাদেরকে মাদকে না জড়ানো, বাল্য বিবাহ না করা, পিতা-মাতার সাথে সদ্য ব্যবহার করার, মারামারিতে জড়ানো এসব ধরনের কাজ থেকে রিবত থাকতে বলেছেন।

তিনি বলেন, এটি একটি বিরল রায়। এর আগে কখনও এটি হয়নি। রাজশাহীতে প্রথম এই ধরনের রায়ের ব্যবহার হলো। আমার এখন তাদের মনিটরিং করবো ও তাদের আরও ভালো কাজগুলো ঠিক করে দেবো।