ঢাকা ০২:২৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজশাহীতে মাদক সম্রাট সোহেলসহ গ্রেপ্তার ৪

বিদেশি মদসহ গ্রেফতারকৃত আসামি

রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া ও দামকুড়া থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ২৫২ বোতল ফেন্সিডিল ও ৮ বোতল বিদেশি মদসহ ৪ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানান আরএমপি মিডিয়া মুখপাত্র জামিরুল ইসলাম।

গ্রেফতারকৃত আসামিরা হলেন আকিরুল ইসলাম (৪৫), মোসা: নাদিরা বেগম (৪০), মো: সোহেল রানা (৩৯) ও মো: শরিফুল ইসলাম (২৬)। আকিরুল ইসলাম চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ থানার বালিয়াদিঘীর মো: আজিম উদ্দিনের ছেলে, নাদিরা আকিরুল ইসলামের স্ত্রী। তারা বর্তমানে রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া থানার বাসিন্দা, সোহেল রানা রাজশাহী মহানগরীর দামকুড়া থানার হরিপুর সোনাই কান্দির মৃত বাবুলের ছেলে ও শরিফুল ইসলাম একই থানার বেড়পাড়ার মৃত নুরুল হুদার ছেলে।

জানা যায়, গতকাল ২৭ অক্টোবর রাত পৌনে ১০ টায় রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার কে এম আরিফুল হক পিপিএম-এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে সহকারী পুলিশ কমিশনার মোসা: আরজিনা খাতুনের দিকনির্দেশনায় এসআই মো: মিজানুর রহমান ও তাঁর টিম মহানগর এলাকায় মাদকদ্রব্য উদ্ধার অভিযান ডিউটি করছিলো। এসময় তাঁরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন বোয়ালিয়া থানার লিচু বাগান এলাকায় ২ ব্যক্তি ফেন্সিডিল বিক্রয়ের জন্য অবস্থান করছে।

উক্ত সংবাদের পরিপ্রেক্ষিতে ডিবি পুলিশের ঐ টিম রাতেই বোয়ালিয়া থানার লিচু বাগান এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে আসামি আকিরুল ইসলাম ও তার স্ত্রী মোসা: নাদিরাকে তার বাড়ি থেকে ১১৫ বোতল ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতার করে। আরএমপি ডিবি’র অভিযানে বিদেশি মদসহ গ্রেফতারকৃত আসামি

এর আগে এসআই মো: নাদিম উদ্দিন ও তার টিম বিকেল পৌনে ৫ টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে দামুকড়া থানার হরিপুর সোনাইকান্দি এলাকা হতে আসামি মো: সোহেল রানাকে গ্রেফতার করতে পারলেও অপর আসামি আমির চাঁন একটি বস্তা ফেলে পালিয়ে যায়। এসময় বস্তা তল্লাশি করে ৮ বোতল বিদেশি মদসহ উদ্ধার হয়।

এরপর ২৮ অক্টোবর দুপুর সোয়া ১ টার দিকে পুলিশ পরিদর্শক মো: তৌহিদুর রহমানের নেতৃত্বে এসআই মো: মিজানুর রহমান ও তাঁর টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে দামুকড়া থানার বেড়পাড়া এলাকা হতে আসামি মো: শরিফুল ইসলামকে ১৩৭ বোতল ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতার করে। আরএমপি ডিবি’র অভিযানে ১৩৭ বোতল ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতারকৃত আসামি।

পলাতক আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আরএমপি’র বোয়ালিয়া ও দামকুড়া থানায় মাদকদ্রব্য আইনে মামলা করে গ্রেফতারকৃত আসামিদের বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

মিডিয়া তালিকাভুক্ত জাতীয় দৈনিক নববাণী পত্রিকার জন্য সকল জেলা উপজেলায় সংবাদ কর্মী আবশ্যকঃ- আগ্রহীরা আজই আবেদন করুন। মেইল: 24nababani@gmail.com
জনপ্রিয় সংবাদ

৫৮২ কোটি টাকার সার আ’ত্ম’সা’ৎ মা’ম’লা’য় হাইকোর্টের জামিন স্থগিত করেছেন চেম্বার আদালত

রাজশাহীতে মাদক সম্রাট সোহেলসহ গ্রেপ্তার ৪

আপডেট সময় ০৬:২১:৫০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২৩

রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া ও দামকুড়া থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ২৫২ বোতল ফেন্সিডিল ও ৮ বোতল বিদেশি মদসহ ৪ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানান আরএমপি মিডিয়া মুখপাত্র জামিরুল ইসলাম।

গ্রেফতারকৃত আসামিরা হলেন আকিরুল ইসলাম (৪৫), মোসা: নাদিরা বেগম (৪০), মো: সোহেল রানা (৩৯) ও মো: শরিফুল ইসলাম (২৬)। আকিরুল ইসলাম চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ থানার বালিয়াদিঘীর মো: আজিম উদ্দিনের ছেলে, নাদিরা আকিরুল ইসলামের স্ত্রী। তারা বর্তমানে রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া থানার বাসিন্দা, সোহেল রানা রাজশাহী মহানগরীর দামকুড়া থানার হরিপুর সোনাই কান্দির মৃত বাবুলের ছেলে ও শরিফুল ইসলাম একই থানার বেড়পাড়ার মৃত নুরুল হুদার ছেলে।

জানা যায়, গতকাল ২৭ অক্টোবর রাত পৌনে ১০ টায় রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার কে এম আরিফুল হক পিপিএম-এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে সহকারী পুলিশ কমিশনার মোসা: আরজিনা খাতুনের দিকনির্দেশনায় এসআই মো: মিজানুর রহমান ও তাঁর টিম মহানগর এলাকায় মাদকদ্রব্য উদ্ধার অভিযান ডিউটি করছিলো। এসময় তাঁরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন বোয়ালিয়া থানার লিচু বাগান এলাকায় ২ ব্যক্তি ফেন্সিডিল বিক্রয়ের জন্য অবস্থান করছে।

উক্ত সংবাদের পরিপ্রেক্ষিতে ডিবি পুলিশের ঐ টিম রাতেই বোয়ালিয়া থানার লিচু বাগান এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে আসামি আকিরুল ইসলাম ও তার স্ত্রী মোসা: নাদিরাকে তার বাড়ি থেকে ১১৫ বোতল ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতার করে। আরএমপি ডিবি’র অভিযানে বিদেশি মদসহ গ্রেফতারকৃত আসামি

এর আগে এসআই মো: নাদিম উদ্দিন ও তার টিম বিকেল পৌনে ৫ টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে দামুকড়া থানার হরিপুর সোনাইকান্দি এলাকা হতে আসামি মো: সোহেল রানাকে গ্রেফতার করতে পারলেও অপর আসামি আমির চাঁন একটি বস্তা ফেলে পালিয়ে যায়। এসময় বস্তা তল্লাশি করে ৮ বোতল বিদেশি মদসহ উদ্ধার হয়।

এরপর ২৮ অক্টোবর দুপুর সোয়া ১ টার দিকে পুলিশ পরিদর্শক মো: তৌহিদুর রহমানের নেতৃত্বে এসআই মো: মিজানুর রহমান ও তাঁর টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে দামুকড়া থানার বেড়পাড়া এলাকা হতে আসামি মো: শরিফুল ইসলামকে ১৩৭ বোতল ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতার করে। আরএমপি ডিবি’র অভিযানে ১৩৭ বোতল ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতারকৃত আসামি।

পলাতক আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আরএমপি’র বোয়ালিয়া ও দামকুড়া থানায় মাদকদ্রব্য আইনে মামলা করে গ্রেফতারকৃত আসামিদের বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।