ঢাকা ০৪:০১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ মে ২০২৪, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজশাহীতে বিসিক শিল্পনগরী-২ পরিদর্শনে শিল্পমন্ত্রী ও রাসিক মেয়র

ফাইল ছবি।

রাজশাহীর পবা উপজেলার পারিলা ইউনিয়নের কেচুয়াতৈল এলাকায় স্থাপিত বিসিক শিল্পনগরী-২ পরিদর্শন করেছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন এবং আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। শনিবার বিকেলে বিসিক শিল্পনগরী-২ প্রকল্প এলাকা ঘুরে দেখেন তাঁরা। এরপর সেখানে গাছের চারা রোপণ করেন শিল্পমন্ত্রী ও রাসিক মেয়র।

এ সময় রাজশাহী-৪ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক, বিসিক চেয়ারম্যান মুহ. মাহবুবর রহমান, বিভাগীয় কমিশনার জিএসএম জাফরউল্লাহ, জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, বিসিক, রাজশাহীর আঞ্চলিক পরিচালক রেজাউল আলম সরকার, জেলা কার্যালয়ের উপ-মহাব্যবস্থাপক জাফর বায়েজিদ, রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি সভাপতি মাসুদুর রহমান রিংকু।

প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, রাজশাহী বিসিক শিল্পনগরী-২ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ১৭২ কোটি টাকা। এরমধ্যে ভূমি ও ভূমি উন্নয়ন ব্যয় ১০৫ কোটি টাকা। বাকি ৬৭ কোটি টাকায় শিল্প স্থাপনের সকল অবকাঠামো নির্মাণ, রাস্তা, ড্রেন, কালর্ভাট নির্মাণ, পানি, গ্যাস ও বিদ্যুৎ লাইন সংযোগ, সীমানা প্রাচীর, পাম্প হাউজিং, অফিস, পানি সংরক্ষের জন্য পুকুর ইত্যাদি স্থাপন করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে ভূমি উন্নয়ন কাজ, বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ, ড্রেনসহ অন্যান্য স্থাপনা নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। এখন প্লট বরাদ্দের অপেক্ষায় রয়েছে। বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনের (বিসিক) তত্ত্বাবধানে বাস্তবায়নাধীন এই প্রকল্পটি দেশের শিল্পায়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে এবং একটি বিশেষায়িত শিল্প নগরী স্থাপনের মাধ্যমে রাজশাহীর জনগণের দীর্ঘদিনের আকাঙ্খা পূরণ হবে।

উল্লেখ্য, রাজশাহীতে শিল্পাঞ্চল প্রতিষ্ঠা ও বিপুল সংখ্যক মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে বিসিক শিল্পনগরী-২ স্থাপন রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের নির্বাচনী একটি প্রতিশ্রুতি। ২০২০ সালের ৪ জুলাই রাজশাহী বিসিক শিল্পনগরী-২ প্রকল্পের ৫০ একর ভূমির উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন। প্রকল্পটির কাজ শেষে হলে সেখানে প্রায় ১০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

রাজশাহীতে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ শীর্ষক আলোচনা সভা

রাজশাহীতে বিসিক শিল্পনগরী-২ পরিদর্শনে শিল্পমন্ত্রী ও রাসিক মেয়র

আপডেট সময় ০৫:৪৮:০৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২

রাজশাহীর পবা উপজেলার পারিলা ইউনিয়নের কেচুয়াতৈল এলাকায় স্থাপিত বিসিক শিল্পনগরী-২ পরিদর্শন করেছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন এবং আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। শনিবার বিকেলে বিসিক শিল্পনগরী-২ প্রকল্প এলাকা ঘুরে দেখেন তাঁরা। এরপর সেখানে গাছের চারা রোপণ করেন শিল্পমন্ত্রী ও রাসিক মেয়র।

এ সময় রাজশাহী-৪ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক, বিসিক চেয়ারম্যান মুহ. মাহবুবর রহমান, বিভাগীয় কমিশনার জিএসএম জাফরউল্লাহ, জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, বিসিক, রাজশাহীর আঞ্চলিক পরিচালক রেজাউল আলম সরকার, জেলা কার্যালয়ের উপ-মহাব্যবস্থাপক জাফর বায়েজিদ, রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি সভাপতি মাসুদুর রহমান রিংকু।

প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, রাজশাহী বিসিক শিল্পনগরী-২ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ১৭২ কোটি টাকা। এরমধ্যে ভূমি ও ভূমি উন্নয়ন ব্যয় ১০৫ কোটি টাকা। বাকি ৬৭ কোটি টাকায় শিল্প স্থাপনের সকল অবকাঠামো নির্মাণ, রাস্তা, ড্রেন, কালর্ভাট নির্মাণ, পানি, গ্যাস ও বিদ্যুৎ লাইন সংযোগ, সীমানা প্রাচীর, পাম্প হাউজিং, অফিস, পানি সংরক্ষের জন্য পুকুর ইত্যাদি স্থাপন করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে ভূমি উন্নয়ন কাজ, বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ, ড্রেনসহ অন্যান্য স্থাপনা নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। এখন প্লট বরাদ্দের অপেক্ষায় রয়েছে। বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনের (বিসিক) তত্ত্বাবধানে বাস্তবায়নাধীন এই প্রকল্পটি দেশের শিল্পায়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে এবং একটি বিশেষায়িত শিল্প নগরী স্থাপনের মাধ্যমে রাজশাহীর জনগণের দীর্ঘদিনের আকাঙ্খা পূরণ হবে।

উল্লেখ্য, রাজশাহীতে শিল্পাঞ্চল প্রতিষ্ঠা ও বিপুল সংখ্যক মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে বিসিক শিল্পনগরী-২ স্থাপন রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের নির্বাচনী একটি প্রতিশ্রুতি। ২০২০ সালের ৪ জুলাই রাজশাহী বিসিক শিল্পনগরী-২ প্রকল্পের ৫০ একর ভূমির উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন। প্রকল্পটির কাজ শেষে হলে সেখানে প্রায় ১০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।