ঢাকা ১০:১৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ মে ২০২৪, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজশাহীতে বিশ্ব মান দিবসের আলোচনা সভা

৫৪তম বিশ্ব মান দিবস

আজ শনিবার (১৪ অক্টোবর) ৫৪তম বিশ্ব মান দিবস। পণ্য ও সেবার মানের বিষয়ে সচেতনতা তৈরিতে ১৯৭০ খিস্টাব্দ থেকে প্রতি বছর বিশ্বব্যাপী দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। ‘সমন্বিত উদ্যোগে টেকসই উন্নত বিশ্ব বিনির্মাণে- মান’ প্রতিপাদ্য নিয়ে সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও আজ বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি উদ্যাপিত হয়।

এ উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের আয়োজনে আজ সকালে বিএসটিআই এর সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) জসীম উদ্দীন হায়দার প্রধান অতিথি হিসেবে সভায় বক্তৃতা করেন।

প্রধান অতিথি বলেন, বিশ্ব চায় সর্বক্ষেত্রে একটি মান। সকল পণ্যের মান কীভাবে উন্নত করা যায়, সে লক্ষ্যে কাজ করতে হবে। এ ক্ষেত্রে দেশীয় পণ্যকে আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন করে কীভাবে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা সম্ভব, সেদিকে লক্ষ্য রেখেই আমাদের কাজ করা উচিত।আমাদের যারা ভোক্তা আছেন তাদের স্বার্থের জন্য কাজ করতে হবে, তারা যেন মানসম্পন্ন পণ্য পায়। মানহীন ও অনিরাপদ ভোগ্যপণ্যই ভোক্তার জন্য ক্ষতিকর।দেশে বিএসটিআই কর্তৃক অনুমোদিত ২২৯টি পণ্য রয়েছে যেগুলোতে বিএসটিআই এর লোগো দেখে কোনো ভয়-ভীতি ছাড়াই ক্রয় করা যায় বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, যে সমস্ত পণ্যকে বিএসটিআই স্ট্যান্ডার্ড দলিল দিচ্ছে সেগুলো ভোক্তাদের কাছে বেশি বেশি করে তুলে ধরতে হবে, যাতে তারা সচেতন হতে পারে।

জাতীয় মান সংস্থা বিএসটিআইকে শক্তিশালী ও কার্যকর মান নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে সবার সহযোগিতা কামনা করে প্রধান অতিথি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ২০৩০ সালে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ গড়ার লক্ষ্যে সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে।

বর্তমান সরকারকে ব্যবসা-বান্ধব সরকার উল্লেখ করে প্রধান অতিথি ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে বলেন, এখন উন্মুক্ত বাজার ব্যবস্থা। এখানে যদি আপনারা কোনো খারাপ মানের পণ্য বাজারে নিয়ে আসেন, তাহলে সেটা সাময়িকভাবে ভোক্তা গ্রহণ করবে ঠিকই কিন্তু একটি নির্দিষ্ট সময় পরে সেই পণ্য বাজারে টিকে থাকতে পারবে না সেদিকে আপনাদের নজর রাখতে হবে। তিনি ব্যবসায়ীদের ভালো মানের পণ্য বাজারে নিয়ে আসতে বলেন।

রাজশাহী বিএসটিআই এর পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মোঃ সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (উন্নয়ন ও সার্বিক) সরকার অসীম কুমার, রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির সভাপতি মাসুদুর রহমান রিংকু, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক মো: ফজলুর রহমান, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ শাফিউল ইসলাম। সভায় স্বাগত বক্তৃতা দেন বিএসটিআই এর উপপরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মোঃ সাইফুল ইসলাম।

সভায় বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, ব্যবসায়ী ও গণমাধ্যমকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

রাজশাহীতে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ শীর্ষক আলোচনা সভা

রাজশাহীতে বিশ্ব মান দিবসের আলোচনা সভা

আপডেট সময় ০৫:৩৮:০৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৪ অক্টোবর ২০২৩

আজ শনিবার (১৪ অক্টোবর) ৫৪তম বিশ্ব মান দিবস। পণ্য ও সেবার মানের বিষয়ে সচেতনতা তৈরিতে ১৯৭০ খিস্টাব্দ থেকে প্রতি বছর বিশ্বব্যাপী দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। ‘সমন্বিত উদ্যোগে টেকসই উন্নত বিশ্ব বিনির্মাণে- মান’ প্রতিপাদ্য নিয়ে সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও আজ বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি উদ্যাপিত হয়।

এ উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের আয়োজনে আজ সকালে বিএসটিআই এর সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) জসীম উদ্দীন হায়দার প্রধান অতিথি হিসেবে সভায় বক্তৃতা করেন।

প্রধান অতিথি বলেন, বিশ্ব চায় সর্বক্ষেত্রে একটি মান। সকল পণ্যের মান কীভাবে উন্নত করা যায়, সে লক্ষ্যে কাজ করতে হবে। এ ক্ষেত্রে দেশীয় পণ্যকে আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন করে কীভাবে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা সম্ভব, সেদিকে লক্ষ্য রেখেই আমাদের কাজ করা উচিত।আমাদের যারা ভোক্তা আছেন তাদের স্বার্থের জন্য কাজ করতে হবে, তারা যেন মানসম্পন্ন পণ্য পায়। মানহীন ও অনিরাপদ ভোগ্যপণ্যই ভোক্তার জন্য ক্ষতিকর।দেশে বিএসটিআই কর্তৃক অনুমোদিত ২২৯টি পণ্য রয়েছে যেগুলোতে বিএসটিআই এর লোগো দেখে কোনো ভয়-ভীতি ছাড়াই ক্রয় করা যায় বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, যে সমস্ত পণ্যকে বিএসটিআই স্ট্যান্ডার্ড দলিল দিচ্ছে সেগুলো ভোক্তাদের কাছে বেশি বেশি করে তুলে ধরতে হবে, যাতে তারা সচেতন হতে পারে।

জাতীয় মান সংস্থা বিএসটিআইকে শক্তিশালী ও কার্যকর মান নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে সবার সহযোগিতা কামনা করে প্রধান অতিথি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ২০৩০ সালে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ গড়ার লক্ষ্যে সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে।

বর্তমান সরকারকে ব্যবসা-বান্ধব সরকার উল্লেখ করে প্রধান অতিথি ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে বলেন, এখন উন্মুক্ত বাজার ব্যবস্থা। এখানে যদি আপনারা কোনো খারাপ মানের পণ্য বাজারে নিয়ে আসেন, তাহলে সেটা সাময়িকভাবে ভোক্তা গ্রহণ করবে ঠিকই কিন্তু একটি নির্দিষ্ট সময় পরে সেই পণ্য বাজারে টিকে থাকতে পারবে না সেদিকে আপনাদের নজর রাখতে হবে। তিনি ব্যবসায়ীদের ভালো মানের পণ্য বাজারে নিয়ে আসতে বলেন।

রাজশাহী বিএসটিআই এর পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মোঃ সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (উন্নয়ন ও সার্বিক) সরকার অসীম কুমার, রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির সভাপতি মাসুদুর রহমান রিংকু, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক মো: ফজলুর রহমান, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ শাফিউল ইসলাম। সভায় স্বাগত বক্তৃতা দেন বিএসটিআই এর উপপরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মোঃ সাইফুল ইসলাম।

সভায় বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, ব্যবসায়ী ও গণমাধ্যমকর্মী উপস্থিত ছিলেন।