ঢাকা ১২:৩৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাজশাহীতে পাঠ্যপুস্তবক উৎসব অনুষ্ঠানে মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন ‘বিনামূল্যে বই পৌঁছে দেওয়া নাগরিকদের কল্যানে সরকারের বিনিয়োগ’

ফাইল ছবি।

রাজশাহীতে উৎসবমুখর পরিবেশে পাঠ্যপুস্তবক উৎসব দিবসে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে নতুন বই বিতরণ করা হয়েছে। রবিবার (১জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় অগ্রণী বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয়ে বেলুন-ফেস্টুন ও পায়রা উড়িয়ে এবং শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে পাঠ্যপুস্তবক উৎসবের উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের উপ-পরিচালক এই পাঠ্যপুস্তক উৎসবের আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ২০১২ সালে দেশ বর্তমানের মতো এতো উন্নত ছিল না। তবে সেই সময়েই সারাদেশে বছরের প্রথম দিনেই শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যে নতুন বই তুলে দেওয়ার দু:সাহসীক পদক্ষেপ গ্রহণ করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বই ছাপিয়ে বিনামূল্যে বিতরণ করে দেয়াটা খুব দু:সাহসীক কাজ। প্রতিবছর এভাবে বই তৈরি করে বাঁধাই করে ট্রাকে করে স্কুলে স্কুলে গ্রামেগঞ্জে পাহাড়ে পৌছে দেয়া এটি  সহজ কথা নয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সেই কাজটি করে যাচ্ছেন সুনিপুনভাবে। এ বছর সরকার সারাদেশের ৪ কোটি ৯ লাখ শিক্ষার্থীদের হাতে প্রায় ৩৫ কোটি বই বিনামূল্যে তুলে দিচ্ছে। আমি মনে করি এটি নাগরিকদের কল্যানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিনিয়োগ। ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে শিক্ষিত ও প্রশিক্ষিত করে গড়ে তুলতে পারলে তারা দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তরিত হবে। এতে আমাদের সবদিক দিয়েই লাভ। কাজেই সরকার এটা বিনিয়োগ করছেন নাগরিকদের কল্যাণে, দেশবাসীর কল্যাণে। এটা অব্যাহত থাকবে। এটা আরও বেশি সম্প্রসারিত হচ্ছে।

নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের সৌভাগ্যবান উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রাসিক খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, যারা দেশ ও জাতি গড়বে আগামী দিনে তাদেরকে আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে না পারলে দেশের কাছে বোঝা হয়ে যাবে তারা। তারা যাতে সম্পদ হয়, দেশের জন্য আশির্বাদ হয়, সেকারণে তাদের হাতে সময় মতো বই পৌছে দেয়া হচ্ছে। দেশে প্রায় ৭৫ শতাংশ শিক্ষিতের হার। আমরা অপেক্ষায় তাকিয়ে আছি সেই দিকে যেদিন শতভাগ শিক্ষিত জাতিতে পরিণত হবো আমরা।

দেশের উন্নয়নে বিদ্যুতের গুরুত্ব তুলে ধরে মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, দেশের সকল গ্রামে, পাহাড়ে, চড়ে, দ্বিপ সহ সর্বত্র বিদ্যুত পৌছে দিয়েছে আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। শতভাগ বিদ্যুতায়িত দেশ দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে একমাত্র বাংলাদেশ। এটি আমাদের একটা গর্ব। আমরা আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। সম্প্রতি দেশে প্রথমবারের মতো মেট্রোরেলের উদ্বোধন হয়েছে। ২০৪১ সালে বাংলাদেশ উন্নত ধনী বিশ্বের কাতের পৌছে যাবে বাংলাদেশ।

রাসিক মেয়র আরো বলেন, রাজশাহীতে বিশেষায়িত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিয়ে আসা হচ্ছে। ইতোমধ্যে হলিক্রস স্কুল এন্ড কলেজের কার্যক্রম শুরু করেছে। নটরডেম সহ অন্যান্য বিশেষায়িত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আসলে শিক্ষাক্ষেত্রে রাজশাহী আরো এগিয়ে যাবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের উপ-পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) ড. শরমিন ফেরদৌস চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার এএনএম মইনুল ইসলাম,  রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মোঃ মাহবুবুর রহমান শাহ, রাজশাহী জেলা শিক্ষা অফিসার মোহাঃ নাসির উদ্দিন, অগ্রণী বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয়ে সভাপতি মোশাররফ হোসেন বাচ্চু, অধ্যক্ষ মোঃ সাইফুল হক প্রমুখ।

আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় রাসিক মেয়র ‘বঙ্গবন্ধু ভাষা আন্দোলনের মাধ্যমে স্বাধীনতার বীজ বোপন করেছিলেন’

রাজশাহীতে পাঠ্যপুস্তবক উৎসব অনুষ্ঠানে মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন ‘বিনামূল্যে বই পৌঁছে দেওয়া নাগরিকদের কল্যানে সরকারের বিনিয়োগ’

আপডেট সময় ০৩:৫৯:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১ জানুয়ারী ২০২৩

রাজশাহীতে উৎসবমুখর পরিবেশে পাঠ্যপুস্তবক উৎসব দিবসে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে নতুন বই বিতরণ করা হয়েছে। রবিবার (১জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় অগ্রণী বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয়ে বেলুন-ফেস্টুন ও পায়রা উড়িয়ে এবং শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে পাঠ্যপুস্তবক উৎসবের উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের উপ-পরিচালক এই পাঠ্যপুস্তক উৎসবের আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ২০১২ সালে দেশ বর্তমানের মতো এতো উন্নত ছিল না। তবে সেই সময়েই সারাদেশে বছরের প্রথম দিনেই শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যে নতুন বই তুলে দেওয়ার দু:সাহসীক পদক্ষেপ গ্রহণ করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বই ছাপিয়ে বিনামূল্যে বিতরণ করে দেয়াটা খুব দু:সাহসীক কাজ। প্রতিবছর এভাবে বই তৈরি করে বাঁধাই করে ট্রাকে করে স্কুলে স্কুলে গ্রামেগঞ্জে পাহাড়ে পৌছে দেয়া এটি  সহজ কথা নয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সেই কাজটি করে যাচ্ছেন সুনিপুনভাবে। এ বছর সরকার সারাদেশের ৪ কোটি ৯ লাখ শিক্ষার্থীদের হাতে প্রায় ৩৫ কোটি বই বিনামূল্যে তুলে দিচ্ছে। আমি মনে করি এটি নাগরিকদের কল্যানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিনিয়োগ। ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে শিক্ষিত ও প্রশিক্ষিত করে গড়ে তুলতে পারলে তারা দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তরিত হবে। এতে আমাদের সবদিক দিয়েই লাভ। কাজেই সরকার এটা বিনিয়োগ করছেন নাগরিকদের কল্যাণে, দেশবাসীর কল্যাণে। এটা অব্যাহত থাকবে। এটা আরও বেশি সম্প্রসারিত হচ্ছে।

নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের সৌভাগ্যবান উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রাসিক খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, যারা দেশ ও জাতি গড়বে আগামী দিনে তাদেরকে আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে না পারলে দেশের কাছে বোঝা হয়ে যাবে তারা। তারা যাতে সম্পদ হয়, দেশের জন্য আশির্বাদ হয়, সেকারণে তাদের হাতে সময় মতো বই পৌছে দেয়া হচ্ছে। দেশে প্রায় ৭৫ শতাংশ শিক্ষিতের হার। আমরা অপেক্ষায় তাকিয়ে আছি সেই দিকে যেদিন শতভাগ শিক্ষিত জাতিতে পরিণত হবো আমরা।

দেশের উন্নয়নে বিদ্যুতের গুরুত্ব তুলে ধরে মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, দেশের সকল গ্রামে, পাহাড়ে, চড়ে, দ্বিপ সহ সর্বত্র বিদ্যুত পৌছে দিয়েছে আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। শতভাগ বিদ্যুতায়িত দেশ দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে একমাত্র বাংলাদেশ। এটি আমাদের একটা গর্ব। আমরা আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। সম্প্রতি দেশে প্রথমবারের মতো মেট্রোরেলের উদ্বোধন হয়েছে। ২০৪১ সালে বাংলাদেশ উন্নত ধনী বিশ্বের কাতের পৌছে যাবে বাংলাদেশ।

রাসিক মেয়র আরো বলেন, রাজশাহীতে বিশেষায়িত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিয়ে আসা হচ্ছে। ইতোমধ্যে হলিক্রস স্কুল এন্ড কলেজের কার্যক্রম শুরু করেছে। নটরডেম সহ অন্যান্য বিশেষায়িত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আসলে শিক্ষাক্ষেত্রে রাজশাহী আরো এগিয়ে যাবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের উপ-পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) ড. শরমিন ফেরদৌস চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার এএনএম মইনুল ইসলাম,  রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মোঃ মাহবুবুর রহমান শাহ, রাজশাহী জেলা শিক্ষা অফিসার মোহাঃ নাসির উদ্দিন, অগ্রণী বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয়ে সভাপতি মোশাররফ হোসেন বাচ্চু, অধ্যক্ষ মোঃ সাইফুল হক প্রমুখ।