ঢাকা ০১:১০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাজশাহীতে দেশবরেণ্য বাউল শিল্পী শফি মন্ডলকে কান্তকবি পদক প্রদান

ফাইল ছবি।

পঞ্চকবির অন্যতম রাজশাহীর সন্তান রজনীকান্ত সেনের জন্মজয়ন্তী উপলক্ষ্যে গুনীজন সম্মাননা পদক প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় রাজশাহী মহানগরীর লালনশাহ পার্ক মুক্তমঞ্চে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। কান্তকবির মেলা ও জয়বাংলা সাংস্কৃতিক জোট, রাজশাহী আয়োজিত অনুষ্ঠানে দেশবরেণ্য বাউল শিল্পী শফি মন্ডলকে কান্তকবি পদক প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে বাউল শিল্পী শফি মন্ডলকে উত্তরীয় পরিয়ে দেন এবং তাঁর হাতে মানপত্র, সম্মাননা স্মারক ও নগদ অর্থ তুলে দেন রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, বাউল শিল্পী শফি মন্ডলকে দেশ ও দেশের বাহিরের মানুষের কাছে অনেক জনপ্রিয়। তাঁকে আজকে যে সম্মাননা দেওয়া হলো, তিনি তার চেয়ে অনেক উপরের। বাউল শিল্পী শফি মন্ডলকে সম্মাননা দেওয়ায় আমি আয়োজকদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

মেয়র আরো বলেন, রাজশাহী সাংস্কৃতিক চর্চার উর্বর ভূমি। এখনকার সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে বারবার বাঁধাগ্রস্ত হলেও যারা সাংস্কৃতিক চর্চাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন, তাদের সাথে আমরা ছিলাম, আছি এবং আগামীতেও থাকবো।

অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত শিল্পী শফি মন্ডল বলেন, মাত্র কিছুদিন হলো আমি বৈরাগী নিয়েছি। জীবনের এই ক্লান্তিকালে আমাকে যে সম্মাননা দেওয়া হলো, তাতে আমি অনেক আনন্দিত।

এ সময় ভবা পাগলার গান গেয়ে শিল্পী শফি মন্ডল বলেন, ‘কে দেয় সম্মান, কে করে অপমান
এমন ছলনা, কেন হে প্রভু।’

এরআগে প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানে উদ্বোধক ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর গোলাম সাব্বির সাত্তার। সভাপতিত্ব করেন কান্তকবির মেলা, রাজশাহীর সভাপতি অর্চনা প্রামাণিক লিপি। অনুষ্ঠানে কবিকুঞ্জের সভাপতি প্রফেসর রুহুল আমিন প্রামাণিক, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, রাজশাহীর সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার ঘোষ, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. এফএমএ জাহিদ, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, রাজশাহী জেলার সভাপতি কল্পনা রায়, কান্তকবির মেলা, রাজশাহীর সাধারণ সম্পাদক মোঃ রোকনুজ্জামান, সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল উপস্থিত ছিলেন।#

আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

পিবিআই রাজশাহীতে মামলা তদন্ত ও প্রতিবেদন দাখিল ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত

রাজশাহীতে দেশবরেণ্য বাউল শিল্পী শফি মন্ডলকে কান্তকবি পদক প্রদান

আপডেট সময় ০৭:৪৫:২৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৯ নভেম্বর ২০২২
পঞ্চকবির অন্যতম রাজশাহীর সন্তান রজনীকান্ত সেনের জন্মজয়ন্তী উপলক্ষ্যে গুনীজন সম্মাননা পদক প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় রাজশাহী মহানগরীর লালনশাহ পার্ক মুক্তমঞ্চে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। কান্তকবির মেলা ও জয়বাংলা সাংস্কৃতিক জোট, রাজশাহী আয়োজিত অনুষ্ঠানে দেশবরেণ্য বাউল শিল্পী শফি মন্ডলকে কান্তকবি পদক প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে বাউল শিল্পী শফি মন্ডলকে উত্তরীয় পরিয়ে দেন এবং তাঁর হাতে মানপত্র, সম্মাননা স্মারক ও নগদ অর্থ তুলে দেন রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, বাউল শিল্পী শফি মন্ডলকে দেশ ও দেশের বাহিরের মানুষের কাছে অনেক জনপ্রিয়। তাঁকে আজকে যে সম্মাননা দেওয়া হলো, তিনি তার চেয়ে অনেক উপরের। বাউল শিল্পী শফি মন্ডলকে সম্মাননা দেওয়ায় আমি আয়োজকদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

মেয়র আরো বলেন, রাজশাহী সাংস্কৃতিক চর্চার উর্বর ভূমি। এখনকার সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে বারবার বাঁধাগ্রস্ত হলেও যারা সাংস্কৃতিক চর্চাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন, তাদের সাথে আমরা ছিলাম, আছি এবং আগামীতেও থাকবো।

অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত শিল্পী শফি মন্ডল বলেন, মাত্র কিছুদিন হলো আমি বৈরাগী নিয়েছি। জীবনের এই ক্লান্তিকালে আমাকে যে সম্মাননা দেওয়া হলো, তাতে আমি অনেক আনন্দিত।

এ সময় ভবা পাগলার গান গেয়ে শিল্পী শফি মন্ডল বলেন, ‘কে দেয় সম্মান, কে করে অপমান
এমন ছলনা, কেন হে প্রভু।’

এরআগে প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানে উদ্বোধক ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর গোলাম সাব্বির সাত্তার। সভাপতিত্ব করেন কান্তকবির মেলা, রাজশাহীর সভাপতি অর্চনা প্রামাণিক লিপি। অনুষ্ঠানে কবিকুঞ্জের সভাপতি প্রফেসর রুহুল আমিন প্রামাণিক, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, রাজশাহীর সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার ঘোষ, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. এফএমএ জাহিদ, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, রাজশাহী জেলার সভাপতি কল্পনা রায়, কান্তকবির মেলা, রাজশাহীর সাধারণ সম্পাদক মোঃ রোকনুজ্জামান, সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল উপস্থিত ছিলেন।#