ঢাকা ০৬:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজশাহীতে জিআইএস বেইজড ম্যাপিং ম্যাইক্রোপ্ল্যানিং শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

আগামী প্রজন্ম সুস্থ ও সবল জাতি হিসেবে গড়ে তুলতে

রাজশাহীতে জিআইএস বেইজড ম্যাপিং ম্যাইক্রোপ্ল্যানিং শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে নগর ভবনের সিটি হল সভাকক্ষে রাসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীফ উদ্দিনের সভাপতিত্বে আয়োজিত কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডাঃ মোঃ আনোয়ারুল কবীর।
প্রধান অতিথি ডাঃ মোঃ আনোয়ারুল কবীর বলেন, মা ও শিশু স্বাস্থ্যসেবায় রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের রয়েছে অনেক সাফল্য। জাতীয় পর্যায়ে ইপিআই কার্যক্রমে পরপর ১০বার প্রথম স্থান অধিকার, ইলেকট্রনিক ইমুনাইজেশন পারফরমেন্স এ্যাওয়ার্ড অর্জন, জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধনে পরপর দুইবার দেশসেরা, করোনাকালীন সময়ে টিকা প্রদানসহ নানাভাবে রাসিক প্রশংসিত হয়েছে। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের দিক নির্দেশনায় স্বাস্থ্য বিভাগের সকলের আন্তরিকতার ফলে এই অর্জন সম্ভব হয়েছে। স্বাস্থ্যসেবায় রাসিকের সাফল্যের এ ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। আগামীতে মাঠপর্যায়ে টিকা কার্যক্রমে আরও নতুন বিষয় সংযুক্ত হবে। এজন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে আরও আন্তরিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে।
সভাপতির বক্তব্যে রাসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীফ উদ্দিন বলেন, রাসিকের স্বাস্থ্য বিভাগের কার্যক্রমকে আরও কিভাবে সম্প্রসারিত করা যায় সেই লক্ষ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সহযোগিতা অব্যাহত রেখেছে এজন্য তাদের ধন্যবাদ জানান তিনি। সুখী সমৃদ্ধ উন্নত বাংলাদেশ গড়ে তুলতে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। আগামী প্রজন্ম সুস্থ ও সবল জাতি হিসেবে গড়ে তুলতে পারি সেলক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট সকলকে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে।

সভায় জানানো হয়, জিআইএস মাইক্রোপ্ল্যানিং এর মাধমে ওয়ার্ড এবং বøকের ডিজিটাল ম্যাপ, ওয়ার্ড এবং বøক ভিত্তিক টিকার কভারেজ এবং বাদ পড়া শিশুর তথ্য পাওয়া যাবে, টিকা কেন্দ্র চিহ্নিত করা হবে। কোন এলাকা বাদ পড়েছে কি না তা জানা যাবে। ইপিআই স্টোর থেকে টিকা কেন্দ্রের দুরত্ব নির্ধারণ, অনলাইনের মাধ্যমে যে কোন স্থঅন থেকে টিকা কেন্দ্রের তথ্য পাওয়া যাবে। স্বাস্থ্যকর্মী, সুপারভাইজারদের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করা যাবে।

রাসিকের ফুড এন্ড স্যানিটেশন অফিসার শেখ আরিফুল হকের সঞ্চালনায় কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন রাসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এফএএম আঞ্জুমান আরা বেগম। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন রাসিকের ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এনপিও ইমুনাইজেশন ডাঃ চিরঞ্জিত দাস, জেনেভার জিআইএস স্পেশালিস্ট মি. আছেলা বান্ডালা, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রাজশাহী বিভাগীয় সমন্বয়কারী ডাঃ কামরুজ্জামান।
অনুষ্ঠানে রাসিকের স্বাস্থ্য বিভাগের টীম লিডার ও সুপারভাইজরগণ উপস্থিত ছিলেন।

আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

রাজশাহীতে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ শীর্ষক আলোচনা সভা

রাজশাহীতে জিআইএস বেইজড ম্যাপিং ম্যাইক্রোপ্ল্যানিং শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

আপডেট সময় ০৫:০০:৫৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ নভেম্বর ২০২৩

রাজশাহীতে জিআইএস বেইজড ম্যাপিং ম্যাইক্রোপ্ল্যানিং শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে নগর ভবনের সিটি হল সভাকক্ষে রাসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীফ উদ্দিনের সভাপতিত্বে আয়োজিত কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডাঃ মোঃ আনোয়ারুল কবীর।
প্রধান অতিথি ডাঃ মোঃ আনোয়ারুল কবীর বলেন, মা ও শিশু স্বাস্থ্যসেবায় রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের রয়েছে অনেক সাফল্য। জাতীয় পর্যায়ে ইপিআই কার্যক্রমে পরপর ১০বার প্রথম স্থান অধিকার, ইলেকট্রনিক ইমুনাইজেশন পারফরমেন্স এ্যাওয়ার্ড অর্জন, জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধনে পরপর দুইবার দেশসেরা, করোনাকালীন সময়ে টিকা প্রদানসহ নানাভাবে রাসিক প্রশংসিত হয়েছে। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের দিক নির্দেশনায় স্বাস্থ্য বিভাগের সকলের আন্তরিকতার ফলে এই অর্জন সম্ভব হয়েছে। স্বাস্থ্যসেবায় রাসিকের সাফল্যের এ ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। আগামীতে মাঠপর্যায়ে টিকা কার্যক্রমে আরও নতুন বিষয় সংযুক্ত হবে। এজন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে আরও আন্তরিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে।
সভাপতির বক্তব্যে রাসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীফ উদ্দিন বলেন, রাসিকের স্বাস্থ্য বিভাগের কার্যক্রমকে আরও কিভাবে সম্প্রসারিত করা যায় সেই লক্ষ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সহযোগিতা অব্যাহত রেখেছে এজন্য তাদের ধন্যবাদ জানান তিনি। সুখী সমৃদ্ধ উন্নত বাংলাদেশ গড়ে তুলতে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। আগামী প্রজন্ম সুস্থ ও সবল জাতি হিসেবে গড়ে তুলতে পারি সেলক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট সকলকে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে।

সভায় জানানো হয়, জিআইএস মাইক্রোপ্ল্যানিং এর মাধমে ওয়ার্ড এবং বøকের ডিজিটাল ম্যাপ, ওয়ার্ড এবং বøক ভিত্তিক টিকার কভারেজ এবং বাদ পড়া শিশুর তথ্য পাওয়া যাবে, টিকা কেন্দ্র চিহ্নিত করা হবে। কোন এলাকা বাদ পড়েছে কি না তা জানা যাবে। ইপিআই স্টোর থেকে টিকা কেন্দ্রের দুরত্ব নির্ধারণ, অনলাইনের মাধ্যমে যে কোন স্থঅন থেকে টিকা কেন্দ্রের তথ্য পাওয়া যাবে। স্বাস্থ্যকর্মী, সুপারভাইজারদের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করা যাবে।

রাসিকের ফুড এন্ড স্যানিটেশন অফিসার শেখ আরিফুল হকের সঞ্চালনায় কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন রাসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এফএএম আঞ্জুমান আরা বেগম। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন রাসিকের ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এনপিও ইমুনাইজেশন ডাঃ চিরঞ্জিত দাস, জেনেভার জিআইএস স্পেশালিস্ট মি. আছেলা বান্ডালা, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রাজশাহী বিভাগীয় সমন্বয়কারী ডাঃ কামরুজ্জামান।
অনুষ্ঠানে রাসিকের স্বাস্থ্য বিভাগের টীম লিডার ও সুপারভাইজরগণ উপস্থিত ছিলেন।