ঢাকা ০৩:২২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ মে ২০২৪, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন বাংলাদেশের একজনও গৃহহীন থাকবে না

পুলিশের মহতি উদ্যোগে গোদাগাড়ী ও তানোর থানয় দুই গৃহহীন পরিবার পেল বাড়ি।

ফাইল ছবি

রোববার (১০ এপ্রিল) রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সের অডিটোরিয়ামে বাংলাদেশ পুলিশের উদ্যেগে দেশের প্রতিটি থানা এলাকায় গৃহহীন পরিবারের জন্য একটি করে  গৃহনির্মাণ বাড়ি দেওয়ার  সোভাতে রাজশাহীর গোদাগাড়ী ও তানোর  থানায় দুই  গৃহহীন পরিবার পেলো দুটি বাড়ি।

গোদাগাড়ী থানার,  মোসা: মর্জিনা বেগম। মাতা মৃত সোনাভান বেগম। গ্রাম, মাটি কাটা (ফকির পাড়া)
অপরজন তানোর থানার বাসিন্দা। রোজিনা বেগম বলেন যে বাসস্থন পেলাম সারা জীবন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও
  বাংলাদেশ পুলিশের কাছে কৃতজ্ঞতা থাকবো। তারা আমাকে মাথা গোঁজার ঠাঁই দিল, ছায়া দিল জন্মদাতা পিতার মতো আমাকে দেখলো, আমি পরিবার পরিজন নিয়ে সারাজীবন বসবাস করবো,এর চাইতে বড় পাওয়া আর কি হতে পারে। পুলিশের এই অনুদান আসলে মহৎ অনুদান।
বাংলাদেশ পুলিশের এই মহান উদ্যোগের  আয়োজন অনুসারে গোদাগাড়ী থানায় উপস্থিত ছিলেন মোঃ আসাদুজ্জামান সহকারী( পুলিশ সুপার) গোদাগাড়ী, রাজশাহী। মোঃ কামরুল ইসলাম ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোদাগাড়ী,মডেল থানা । সহকারী (পুলিশ সুপার) আসাদুজ্জামান বলেন পুলিশ জনগণের বন্ধু, জনগণের সেবাই অঙ্গীকার । আমি মনে করি, পুলিশ বাহিনীর  এমন উদ্যোগ যা  জাতির কাছে পুলিশ  সম্পর্কে নতুন  জ্ঞান উন্মোচন হবে।   তিনি আরো বলেন পুলিশ হবে জনতার পুলিশ, সর্বদা সবসময় । বাংলার জনগণের  আপদে-বিপদে তাদের পাশে সর্বক্ষণ ছিল, আছে,  ভবিষ্যতে  থাকবে। পুলিশি হবে জনগণের প্রকৃত বন্ধু।
পুলিশই  হবে জনতা, জনতাই হবে পুলিশ।
মুজিববর্ষে দেশের প্রতিটি থানায় নারী, শিশু, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধীদের জন্য ‘সার্ভিস ডেস্ক’ স্থাপনের উদ্যোগ নেয় বাংলাদেশ পুলিশ। প্রধান অতিথি হিসেবে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন বাংলাদেশের একজনও গৃহহীন থাকবে না। এ লক্ষ্য পূরণে সরকার ভূমিহীন, গৃহহীন পরিবারের জন্য গৃহনির্মাণ প্রকল্প গ্রহণ করে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে বাংলাদেশ পুলিশ প্রতিটি থানায় গৃহহীনদের জন্য গৃহনির্মাণ প্রকল্প গ্রহণ করে।

রাজশাহীতে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ শীর্ষক আলোচনা সভা

মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন বাংলাদেশের একজনও গৃহহীন থাকবে না

পুলিশের মহতি উদ্যোগে গোদাগাড়ী ও তানোর থানয় দুই গৃহহীন পরিবার পেল বাড়ি।

আপডেট সময় ০৯:৪৩:৩০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১১ এপ্রিল ২০২২

রোববার (১০ এপ্রিল) রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সের অডিটোরিয়ামে বাংলাদেশ পুলিশের উদ্যেগে দেশের প্রতিটি থানা এলাকায় গৃহহীন পরিবারের জন্য একটি করে  গৃহনির্মাণ বাড়ি দেওয়ার  সোভাতে রাজশাহীর গোদাগাড়ী ও তানোর  থানায় দুই  গৃহহীন পরিবার পেলো দুটি বাড়ি।

গোদাগাড়ী থানার,  মোসা: মর্জিনা বেগম। মাতা মৃত সোনাভান বেগম। গ্রাম, মাটি কাটা (ফকির পাড়া)
অপরজন তানোর থানার বাসিন্দা। রোজিনা বেগম বলেন যে বাসস্থন পেলাম সারা জীবন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও
  বাংলাদেশ পুলিশের কাছে কৃতজ্ঞতা থাকবো। তারা আমাকে মাথা গোঁজার ঠাঁই দিল, ছায়া দিল জন্মদাতা পিতার মতো আমাকে দেখলো, আমি পরিবার পরিজন নিয়ে সারাজীবন বসবাস করবো,এর চাইতে বড় পাওয়া আর কি হতে পারে। পুলিশের এই অনুদান আসলে মহৎ অনুদান।
বাংলাদেশ পুলিশের এই মহান উদ্যোগের  আয়োজন অনুসারে গোদাগাড়ী থানায় উপস্থিত ছিলেন মোঃ আসাদুজ্জামান সহকারী( পুলিশ সুপার) গোদাগাড়ী, রাজশাহী। মোঃ কামরুল ইসলাম ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোদাগাড়ী,মডেল থানা । সহকারী (পুলিশ সুপার) আসাদুজ্জামান বলেন পুলিশ জনগণের বন্ধু, জনগণের সেবাই অঙ্গীকার । আমি মনে করি, পুলিশ বাহিনীর  এমন উদ্যোগ যা  জাতির কাছে পুলিশ  সম্পর্কে নতুন  জ্ঞান উন্মোচন হবে।   তিনি আরো বলেন পুলিশ হবে জনতার পুলিশ, সর্বদা সবসময় । বাংলার জনগণের  আপদে-বিপদে তাদের পাশে সর্বক্ষণ ছিল, আছে,  ভবিষ্যতে  থাকবে। পুলিশি হবে জনগণের প্রকৃত বন্ধু।
পুলিশই  হবে জনতা, জনতাই হবে পুলিশ।
মুজিববর্ষে দেশের প্রতিটি থানায় নারী, শিশু, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধীদের জন্য ‘সার্ভিস ডেস্ক’ স্থাপনের উদ্যোগ নেয় বাংলাদেশ পুলিশ। প্রধান অতিথি হিসেবে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন বাংলাদেশের একজনও গৃহহীন থাকবে না। এ লক্ষ্য পূরণে সরকার ভূমিহীন, গৃহহীন পরিবারের জন্য গৃহনির্মাণ প্রকল্প গ্রহণ করে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে বাংলাদেশ পুলিশ প্রতিটি থানায় গৃহহীনদের জন্য গৃহনির্মাণ প্রকল্প গ্রহণ করে।