ঢাকা ১০:৪৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পছন্দের প্রার্থী বেছে নিয়ে ভোট দিতে কেন্দ্রে যাবেন : নৌকার প্রার্থী আসাদ

দেশের উন্নয়ন অগ্রগতির মার্কা নৌকা

রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত সংসদ সদস্য প্রার্থী আসাদুজ্জামান আসাদ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এদেশের প্রতিটি মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করেন। তিনি নারীদের সম্মানিত করেছেন, শিক্ষকদের সম্মানিত করেছেন, শিক্ষার্থীদের পাশে রয়েছেন। দেশের অবকাঠামোগত যে উন্নয়ন সেটা দেশের প্রতিটি পাড়া মহল্লার চিত্র। প্রতিটি খাতের উন্নয়ন এখন দৃশ্যমান।

এসব করেছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। তাঁর মার্কা নৌকা মার্কা। দেশের উন্নয়ন অগ্রগতির মার্কা নৌকা। যারা দেশকে ভালোবাসেন, এদেশের উন্নয়নে খুশি হন তাদের কাছে নিবেদন নৌকা মার্কায় ভোট দিন। বুধবার (২০ ডিসেম্বর) বিকেলে রাজশাহীর পবা উপজেলার হুজুরিপাড়া ইউনিয়নের শিশাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক নির্বাচনী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আসাদ এসব কথা বলেন। আসাদ বলেন, আমি জননেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে আপনাদের কাছে ভোট চাইতে এসেছি। আপনাদের কারো যদি আমার থেকে অন্য কাউকে যোগ্য প্রার্থী মনে হয়, আপনি অবশ্যই তাকে ভোট দিতে পারেন। তবে, একটাই অনুরোধ, ৭ জানুয়ারি প্রতিটি ভোটার ভোট কেন্দ্রে যাবেন। পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দেবেন। এটা আপনার আমার সবার অধিকার, সেই সাথে দায়িত্বও।

আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, আমরা যখন স্কুলে যাই তখন আমার নামের সাথে শুধু বাপের নাম ছিল। এখন কি তাই হয় নাকি মায়ের নামও যোগ হয়? এই মায়ের নাম যোগ কে করেছে, শেখ হাসিনা করেছে। তিনি মায়েদের সম্মানিত করেছেন। সেজন্যই তো শেখ হাসিনার জন্য মানুষের কাছে ভোট চাওয়া উচিত। ভোট চাওয়ার ক্ষেত্রে আপনাদের আলাদা একটা অধিকার আছে।

রাজশাহী-৩ আসনের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আরও বলেন, আমরা জিতবো, নৌকা মার্কা নিয়েই জিতবো। কিন্তু আমাদের জেতাটাই জেতা না। শেখ হাসিনাকে বিজয়ী করতে হবে। কারণ শেখ হাসিনা আমেরিকার সাথে চ্যালেঞ্জ করেছেন। চ্যালেঞ্জ হলো, আমাদের দেশের যে উন্নয়ন হয়েছে সেই উন্নয়নের কারণেই কোন দল আসলো কোন দল আসলো না, এটি দেখার বিষয় না। আমাদের দেশে নির্বাচন হবে সেই নির্বাচনে দলমত নির্বিশেষে মানুষ ভোট দিতে আসবে। সেই কারণেই আমরা চাই আপনারা দলে দলে গিয়ে ভোটটা দেন।

রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদ বলেন, একটি সময় ছিল, সারের জন্য কৃষক ভাইদের ডিলারের পেছনে জমির দলিল নিয়ে দৌড়াতে হয়েছে, গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। এমন একটা বিভীষিকাময় পরিস্থিতি থেকে বাংলাদেশকে তো শেখ হাসিনাই রক্ষা করেছেন। সেই কারণেই তো বিএনপি করা কৃষক বন্ধুর কাছ থেকে নৌকায় ভোট চাই। শেখ হাসিনা আপনার উপকার করেছে, উপকারীর ঋণ শোধ করা ধর্মীয় দায়িত্বও বটে। শেখ হাসিনা মানুষকে ছোট করেন না, অসম্মানিত করেন না।

হুজুরিপাড়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউনুস আলীর সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নওহাটা পৌরসভার মেয়র হাফিজুর রহমান, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আরজিয়া বেগম, হুজুরিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ, সাবেক দপ্তর সম্পাদক ফারুক হোসেন ডাবলু, জেলা যুবলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন অর রশীদ, সাবেক শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন, পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি হারুন অর রশীদ বাচ্চু, উপজেলা কৃষক লীগের সাবেক সভাপতি রফিকুল ইসলাম, হুজুরিপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান মাসুদ, সহ-সভাপতি হবিবার রহমান, সহ-সভাপতি আব্দুল হালিম প্রমুখ।

আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

রাজশাহীতে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ শীর্ষক আলোচনা সভা

পছন্দের প্রার্থী বেছে নিয়ে ভোট দিতে কেন্দ্রে যাবেন : নৌকার প্রার্থী আসাদ

আপডেট সময় ০৭:১৯:৪২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ ডিসেম্বর ২০২৩

রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত সংসদ সদস্য প্রার্থী আসাদুজ্জামান আসাদ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এদেশের প্রতিটি মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করেন। তিনি নারীদের সম্মানিত করেছেন, শিক্ষকদের সম্মানিত করেছেন, শিক্ষার্থীদের পাশে রয়েছেন। দেশের অবকাঠামোগত যে উন্নয়ন সেটা দেশের প্রতিটি পাড়া মহল্লার চিত্র। প্রতিটি খাতের উন্নয়ন এখন দৃশ্যমান।

এসব করেছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। তাঁর মার্কা নৌকা মার্কা। দেশের উন্নয়ন অগ্রগতির মার্কা নৌকা। যারা দেশকে ভালোবাসেন, এদেশের উন্নয়নে খুশি হন তাদের কাছে নিবেদন নৌকা মার্কায় ভোট দিন। বুধবার (২০ ডিসেম্বর) বিকেলে রাজশাহীর পবা উপজেলার হুজুরিপাড়া ইউনিয়নের শিশাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক নির্বাচনী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আসাদ এসব কথা বলেন। আসাদ বলেন, আমি জননেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে আপনাদের কাছে ভোট চাইতে এসেছি। আপনাদের কারো যদি আমার থেকে অন্য কাউকে যোগ্য প্রার্থী মনে হয়, আপনি অবশ্যই তাকে ভোট দিতে পারেন। তবে, একটাই অনুরোধ, ৭ জানুয়ারি প্রতিটি ভোটার ভোট কেন্দ্রে যাবেন। পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দেবেন। এটা আপনার আমার সবার অধিকার, সেই সাথে দায়িত্বও।

আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, আমরা যখন স্কুলে যাই তখন আমার নামের সাথে শুধু বাপের নাম ছিল। এখন কি তাই হয় নাকি মায়ের নামও যোগ হয়? এই মায়ের নাম যোগ কে করেছে, শেখ হাসিনা করেছে। তিনি মায়েদের সম্মানিত করেছেন। সেজন্যই তো শেখ হাসিনার জন্য মানুষের কাছে ভোট চাওয়া উচিত। ভোট চাওয়ার ক্ষেত্রে আপনাদের আলাদা একটা অধিকার আছে।

রাজশাহী-৩ আসনের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আরও বলেন, আমরা জিতবো, নৌকা মার্কা নিয়েই জিতবো। কিন্তু আমাদের জেতাটাই জেতা না। শেখ হাসিনাকে বিজয়ী করতে হবে। কারণ শেখ হাসিনা আমেরিকার সাথে চ্যালেঞ্জ করেছেন। চ্যালেঞ্জ হলো, আমাদের দেশের যে উন্নয়ন হয়েছে সেই উন্নয়নের কারণেই কোন দল আসলো কোন দল আসলো না, এটি দেখার বিষয় না। আমাদের দেশে নির্বাচন হবে সেই নির্বাচনে দলমত নির্বিশেষে মানুষ ভোট দিতে আসবে। সেই কারণেই আমরা চাই আপনারা দলে দলে গিয়ে ভোটটা দেন।

রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদ বলেন, একটি সময় ছিল, সারের জন্য কৃষক ভাইদের ডিলারের পেছনে জমির দলিল নিয়ে দৌড়াতে হয়েছে, গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। এমন একটা বিভীষিকাময় পরিস্থিতি থেকে বাংলাদেশকে তো শেখ হাসিনাই রক্ষা করেছেন। সেই কারণেই তো বিএনপি করা কৃষক বন্ধুর কাছ থেকে নৌকায় ভোট চাই। শেখ হাসিনা আপনার উপকার করেছে, উপকারীর ঋণ শোধ করা ধর্মীয় দায়িত্বও বটে। শেখ হাসিনা মানুষকে ছোট করেন না, অসম্মানিত করেন না।

হুজুরিপাড়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউনুস আলীর সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নওহাটা পৌরসভার মেয়র হাফিজুর রহমান, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আরজিয়া বেগম, হুজুরিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ, সাবেক দপ্তর সম্পাদক ফারুক হোসেন ডাবলু, জেলা যুবলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন অর রশীদ, সাবেক শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন, পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি হারুন অর রশীদ বাচ্চু, উপজেলা কৃষক লীগের সাবেক সভাপতি রফিকুল ইসলাম, হুজুরিপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান মাসুদ, সহ-সভাপতি হবিবার রহমান, সহ-সভাপতি আব্দুল হালিম প্রমুখ।