ঢাকা ০৭:৩৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
জনস্বার্থে ও রাজশাহীর উন্নয়নের অংশীদার হতে জমি ব্যবহারের অনুমতি প্রদান করা হয়েছে

নগরীতে সড়ক প্রশস্তকরণে আদালতের ভেতরে জমি ব্যবহারের অনুমতি, সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

নববানী

রাজশাহী মহানগরীর কোর্ট এলাকায় সড়ক প্রশস্তকরণে আদালতের ভেতরে সড়ক সংলগ্ন জায়গা ব্যবহারের অনুমতি পেয়েছে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে জনস্বার্থে আইন মন্ত্রণালয় এই অনুমতি প্রদান করেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার দুপুরে রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের হাতে জায়গা ব্যবহারের অনুমতিপত্র আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে দেন রাজশাহী জেলা ও দায়রা জজ মীর শফিকুল আলম। রাজশাহী জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সম্মেলন কক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুমতিপত্র হস্তান্তর শেষে নতুন সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়।উল্লেখ্য, এ্যাডভোকেট বার ভবন থেকে কোর্ট ঢালান পর্যন্ত সড়ক সংলগ্ন আদালতের ভেতরে ৮ ফুট প্রস্থ এবং ১০৪৮ ফুট দৈর্ঘ্য জায়গা ব্যবহার করতে পারবে সিটি কর্পোরেশন। উক্ত জায়গাতে সড়ক প্রশস্ত করা হবে এবং ফুটপাত নির্মাণ করা হবে। ফলে সড়কটি অনেকটা সোজা হবে, নাগরিকদের স্বাচ্ছন্দ্যে চলাচল নিশ্চিত হবে।অনুষ্ঠানে রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, আজকে রাজশাহীবাসীর জন্য আনন্দের দিন।  কোর্ট মোড় থেকে কোর্ট ঢালান পর্যন্ত সড়কটি অনেক বাকা ও সরু। যাতে নাগরিকদের চলাচলে সমস্যা হয়। সেই সমস্যা সমাধান হতে যাচ্ছে। আমি মাননীয় আইনমন্ত্রী, আইন সচিব ও  জেলা ও দায়রা জজ মহোদয়কে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। জনস্বার্থে আপনাদের এই অবদান আমরা কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ রাখবো।জেলা ও দায়রা জজ মীর শফিকুল আলম বলেন, মেয়র মহোদয় রাজশাহীকে পরিকল্পিতভাবে সাজাচ্ছেন। জনস্বার্থে ও রাজশাহীর উন্নয়নের অংশীদার হতে জমি ব্যবহারের অনুমতি প্রদান করা হয়েছে। আমরা রাজশাহীর উন্নয়নের সাথেই থাকতে চাই।
এ সময় মহানগর দায়রা জজ ও.এইচ.এম ইলিয়াস হোসাইন সহ অন্যান্য সম্মানিত বিচারকবৃন্দ, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু, প্যানেল মেয়র-২ ও ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রজব আলী, প্রকল্পের ইঞ্জিনিয়ারিং এডভাইজার আশরাফুল হক, প্রধান প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী নূর ইসলাম তুষার, জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি এ্যাড. মোজাফফর হোসেন, মহানগর দায়রা জজ আদালতের পিপি এ্যাড. মোঃ মুসাব্বিরুল ইসলাম, এ্যাড. ইব্রাহিম হোসেন, এ্যাড. একরামুল হক, এ্যাড. আসলাম সরকার সহ অন্যান্য আইনজীবীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জনপ্রিয় সংবাদ

পিবিআই রাজশাহীতে মামলা তদন্ত ও প্রতিবেদন দাখিল ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত

জনস্বার্থে ও রাজশাহীর উন্নয়নের অংশীদার হতে জমি ব্যবহারের অনুমতি প্রদান করা হয়েছে

নগরীতে সড়ক প্রশস্তকরণে আদালতের ভেতরে জমি ব্যবহারের অনুমতি, সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

আপডেট সময় ০৭:২০:০০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৫ মার্চ ২০২২

রাজশাহী মহানগরীর কোর্ট এলাকায় সড়ক প্রশস্তকরণে আদালতের ভেতরে সড়ক সংলগ্ন জায়গা ব্যবহারের অনুমতি পেয়েছে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে জনস্বার্থে আইন মন্ত্রণালয় এই অনুমতি প্রদান করেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার দুপুরে রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের হাতে জায়গা ব্যবহারের অনুমতিপত্র আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে দেন রাজশাহী জেলা ও দায়রা জজ মীর শফিকুল আলম। রাজশাহী জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সম্মেলন কক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুমতিপত্র হস্তান্তর শেষে নতুন সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়।উল্লেখ্য, এ্যাডভোকেট বার ভবন থেকে কোর্ট ঢালান পর্যন্ত সড়ক সংলগ্ন আদালতের ভেতরে ৮ ফুট প্রস্থ এবং ১০৪৮ ফুট দৈর্ঘ্য জায়গা ব্যবহার করতে পারবে সিটি কর্পোরেশন। উক্ত জায়গাতে সড়ক প্রশস্ত করা হবে এবং ফুটপাত নির্মাণ করা হবে। ফলে সড়কটি অনেকটা সোজা হবে, নাগরিকদের স্বাচ্ছন্দ্যে চলাচল নিশ্চিত হবে।অনুষ্ঠানে রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, আজকে রাজশাহীবাসীর জন্য আনন্দের দিন।  কোর্ট মোড় থেকে কোর্ট ঢালান পর্যন্ত সড়কটি অনেক বাকা ও সরু। যাতে নাগরিকদের চলাচলে সমস্যা হয়। সেই সমস্যা সমাধান হতে যাচ্ছে। আমি মাননীয় আইনমন্ত্রী, আইন সচিব ও  জেলা ও দায়রা জজ মহোদয়কে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। জনস্বার্থে আপনাদের এই অবদান আমরা কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ রাখবো।জেলা ও দায়রা জজ মীর শফিকুল আলম বলেন, মেয়র মহোদয় রাজশাহীকে পরিকল্পিতভাবে সাজাচ্ছেন। জনস্বার্থে ও রাজশাহীর উন্নয়নের অংশীদার হতে জমি ব্যবহারের অনুমতি প্রদান করা হয়েছে। আমরা রাজশাহীর উন্নয়নের সাথেই থাকতে চাই।
এ সময় মহানগর দায়রা জজ ও.এইচ.এম ইলিয়াস হোসাইন সহ অন্যান্য সম্মানিত বিচারকবৃন্দ, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু, প্যানেল মেয়র-২ ও ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রজব আলী, প্রকল্পের ইঞ্জিনিয়ারিং এডভাইজার আশরাফুল হক, প্রধান প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী নূর ইসলাম তুষার, জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি এ্যাড. মোজাফফর হোসেন, মহানগর দায়রা জজ আদালতের পিপি এ্যাড. মোঃ মুসাব্বিরুল ইসলাম, এ্যাড. ইব্রাহিম হোসেন, এ্যাড. একরামুল হক, এ্যাড. আসলাম সরকার সহ অন্যান্য আইনজীবীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।