ঢাকা ০৬:৫৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ঢাকা থেকে আটক ২৭ কোটি টাকার বিলাসবহুল রোলস রয়েসে গাড়ি

ফাইল ছবি

২৭ কোটি টাকার কর ফাঁকি দিয়ে আমদানি করা বিলাসবহুল রোলস রয়েসে গাড়ি জব্দ করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর।

বুধবার (৬ জুলাই) বিকেলে সারাবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের যুগ্ম পরিচালক মো. শামসুল আরেফিন খান।

তিনি জানান, গাড়িটি আমদানি করেছেন চট্টগ্রাম ইপিজেডের জেড অ্যান্ড জেড ইন্টিমেটস লিমিটেড। চলতি বছরের ২৭ এপ্রিল গাড়িটি চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে আমদানি করা হলেও ৭০ দিন অতিবাহিত হলেও গাড়িটি অ্যাসেসমেন্ট করা হয়নি।

গাড়িটি গত ১৭ মে অবৈধভাবে চট্টগ্রাম ইপিজেড থেকে অবৈধভাবে অপসারণ করে ঢাকার বারিধারায় নিয়ে আসা হয়। এরপর শুল্ক গোয়েন্দা দল আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের এমডির বাসা থেকে বিলাসবহুল রোলস রয়েসে গাড়িটি জব্দ করে।

শামসুল আরেফিন খান আরও জানান, আটককৃত গাড়িটি শুল্কমুক্ত সুবিধা ঘোষণা দিয়ে আমদানি করা। সিপিসি ১৭০ অনুযায়ী ২০০০ সিসি পর্যন্ত কার আমদানি পর্যন্ত শুল্ক মুক্ত সুবিধা পাবে। আটককৃত গাড়িটি ২ হাজার সিসির বেশি হওয়ায় শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবে না। ফলে এখানে সরকারের ২৪ কোটি টাকার রাজস্ব ফাঁকি দেওয়া হয়েছে।

এদিকে গাড়ি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানটি হংকং এবং বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত হচ্ছে। অপরদিকে বেআইনিভাবে গাড়িটি এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় অপসারণ করা এবং শুল্ককর পরিশোধ না করায় অপরাধ করেছে। একইসঙ্গে গাড়িটি কেন ৭০ দিন অতিবাহিত হলেও শুল্কায়ন কার্যক্রম করা হয়নি সে বিষয়ে অনুসন্ধান চলছে।

জনপ্রিয় সংবাদ

পিবিআই রাজশাহীতে মামলা তদন্ত ও প্রতিবেদন দাখিল ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত

ঢাকা থেকে আটক ২৭ কোটি টাকার বিলাসবহুল রোলস রয়েসে গাড়ি

আপডেট সময় ০১:২২:৫২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ জুলাই ২০২২

২৭ কোটি টাকার কর ফাঁকি দিয়ে আমদানি করা বিলাসবহুল রোলস রয়েসে গাড়ি জব্দ করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর।

বুধবার (৬ জুলাই) বিকেলে সারাবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের যুগ্ম পরিচালক মো. শামসুল আরেফিন খান।

তিনি জানান, গাড়িটি আমদানি করেছেন চট্টগ্রাম ইপিজেডের জেড অ্যান্ড জেড ইন্টিমেটস লিমিটেড। চলতি বছরের ২৭ এপ্রিল গাড়িটি চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে আমদানি করা হলেও ৭০ দিন অতিবাহিত হলেও গাড়িটি অ্যাসেসমেন্ট করা হয়নি।

গাড়িটি গত ১৭ মে অবৈধভাবে চট্টগ্রাম ইপিজেড থেকে অবৈধভাবে অপসারণ করে ঢাকার বারিধারায় নিয়ে আসা হয়। এরপর শুল্ক গোয়েন্দা দল আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের এমডির বাসা থেকে বিলাসবহুল রোলস রয়েসে গাড়িটি জব্দ করে।

শামসুল আরেফিন খান আরও জানান, আটককৃত গাড়িটি শুল্কমুক্ত সুবিধা ঘোষণা দিয়ে আমদানি করা। সিপিসি ১৭০ অনুযায়ী ২০০০ সিসি পর্যন্ত কার আমদানি পর্যন্ত শুল্ক মুক্ত সুবিধা পাবে। আটককৃত গাড়িটি ২ হাজার সিসির বেশি হওয়ায় শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবে না। ফলে এখানে সরকারের ২৪ কোটি টাকার রাজস্ব ফাঁকি দেওয়া হয়েছে।

এদিকে গাড়ি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানটি হংকং এবং বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত হচ্ছে। অপরদিকে বেআইনিভাবে গাড়িটি এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় অপসারণ করা এবং শুল্ককর পরিশোধ না করায় অপরাধ করেছে। একইসঙ্গে গাড়িটি কেন ৭০ দিন অতিবাহিত হলেও শুল্কায়ন কার্যক্রম করা হয়নি সে বিষয়ে অনুসন্ধান চলছে।