ঢাকা ০৬:২০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ ফোন করে হাওরে মুক্তি পেলো ১৪ শিক্ষার্থী।

ফাইল ছবি।

কিশোরগঞ্জের হাওরে ঘুরতে যাওয়া কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়পড়ুয়া ১৪ জন শিক্ষার্থী রাতে হাওরে ট্রলার আটকে গিয়ে বিপদে পড়েন তারা।

জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ ফোন করে বিপদের হাত থে‌কে রক্ষা পান।

বৃহস্পতিবার( ১৮ আগস্ট)  রাতে কিশোরগ‌ঞ্জের মিঠামইন উপজেলার গোপ‌দিঘী ইউনিয়নের ডু‌বি এলাকা থেকে নৌ-পু‌লিশ তাদের উদ্ধার করে। চামড়াঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এএসআই মো. এনামূল হক ঘটনার সত্যতা নি‌শ্চিত করেছেন।

তি‌নি জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও কিশোরগঞ্জ গুরুদয়াল সরকারি কলেজের ১৪ জন শিক্ষার্থী হাওরের অলওয়েদার সড়কে ঘুরতে যায়। তারা করিমগঞ্জ উপ‌জেলার বালিখলা থেকে একটি ট্রলার ভাড়া করে মিঠামইনে নেমে অলওয়েদার সড়কে ঘোরাঘুরি করেন। সন্ধ্যার পর সেখান থেকে ফেরার পথে প্রচণ্ড বাতাসে মিঠামইন উপজেলার হাসনপুর সেতুর কাছে তাদের বহনকারী ট্রলারটি আটকে যায়।

এ সময় ডাকাতের ভয়ে দুই শিক্ষার্থী ট্রলার থেকে পা‌নিতে লাফিয়ে পড়েন। এর একপর্যায়ে ওই ট্রলারে থাকা একজন শিক্ষার্থী ৯৯৯-এ ফোন করে সহায়তা চাইলে বিষয়টি করিমগঞ্জের চামড়াঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়িকে জানানো হয়।

এএসআই এনামুল হক জানান, খবর পেয়ে তার নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল রাত ১২টার দিকে শিক্ষার্থীদের বহনকারী ট্রলারটির অবস্থান জানতে পারে। রাত ১টার দিকে পানিতে লাফ দিয়ে পড়া দুই শিক্ষর্থীসহ অন্যদের উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ জেলা সদরে পৌঁছে দেয়া হয়।

আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

রাজশাহীতে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ শীর্ষক আলোচনা সভা

জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ ফোন করে হাওরে মুক্তি পেলো ১৪ শিক্ষার্থী।

আপডেট সময় ০৭:৩৬:১৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২
কিশোরগঞ্জের হাওরে ঘুরতে যাওয়া কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়পড়ুয়া ১৪ জন শিক্ষার্থী রাতে হাওরে ট্রলার আটকে গিয়ে বিপদে পড়েন তারা।

জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ ফোন করে বিপদের হাত থে‌কে রক্ষা পান।

বৃহস্পতিবার( ১৮ আগস্ট)  রাতে কিশোরগ‌ঞ্জের মিঠামইন উপজেলার গোপ‌দিঘী ইউনিয়নের ডু‌বি এলাকা থেকে নৌ-পু‌লিশ তাদের উদ্ধার করে। চামড়াঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এএসআই মো. এনামূল হক ঘটনার সত্যতা নি‌শ্চিত করেছেন।

তি‌নি জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও কিশোরগঞ্জ গুরুদয়াল সরকারি কলেজের ১৪ জন শিক্ষার্থী হাওরের অলওয়েদার সড়কে ঘুরতে যায়। তারা করিমগঞ্জ উপ‌জেলার বালিখলা থেকে একটি ট্রলার ভাড়া করে মিঠামইনে নেমে অলওয়েদার সড়কে ঘোরাঘুরি করেন। সন্ধ্যার পর সেখান থেকে ফেরার পথে প্রচণ্ড বাতাসে মিঠামইন উপজেলার হাসনপুর সেতুর কাছে তাদের বহনকারী ট্রলারটি আটকে যায়।

এ সময় ডাকাতের ভয়ে দুই শিক্ষার্থী ট্রলার থেকে পা‌নিতে লাফিয়ে পড়েন। এর একপর্যায়ে ওই ট্রলারে থাকা একজন শিক্ষার্থী ৯৯৯-এ ফোন করে সহায়তা চাইলে বিষয়টি করিমগঞ্জের চামড়াঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়িকে জানানো হয়।

এএসআই এনামুল হক জানান, খবর পেয়ে তার নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল রাত ১২টার দিকে শিক্ষার্থীদের বহনকারী ট্রলারটির অবস্থান জানতে পারে। রাত ১টার দিকে পানিতে লাফ দিয়ে পড়া দুই শিক্ষর্থীসহ অন্যদের উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ জেলা সদরে পৌঁছে দেয়া হয়।