ঢাকা ০৫:৩১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
রাজশাহীর মহানগরীর সরু রাস্তাগুলো প্রশস্ত করা হচ্ছে

চৌদ্দপাই হতে শ্যামপুর বাঁধ পর্যন্ত ফুটপাতসহ কার্পেটিং সড়ক, প্রাইমারী ড্রেন ও কালভার্ট নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৭:৫৩:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৫ মার্চ ২০২২
  • ৩২৮ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ছবি।

রাজশাহী মহানগরীর সমন্বিত নগর অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় চৌদ্দপাই ফায়ার সার্ভিস মোড় হতে শ্যামপুর বাঁধ পর্যন্ত ফুটপাতসহ কার্পেটিং সড়ক প্রাইমারী ড্রেন ও কালভার্ট নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে চৌদ্দপাই ফায়ার সার্ভিস মোড়ে ফলক উন্মোচনের মাধ্যমে এ কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।
এ প্রকল্পের আওতায় চৌদ্দপাই ফায়ার সার্ভিস মোড় হতে শ্যামপুর বাঁধ পর্যন্ত ফুটপাতসহ কার্পেটিং সড়ক প্রাইমারী ড্রেন ও কালভার্ট নির্মাণ কাজে ব্যয় ধরা হয়েছে ২৩ কোটি ৫৬লাখ ৮৭ হাজার ৫২২টাকা। প্রকল্পের আওতায় ১২.৬মিটার প্রশস্ত দেড় কিলোমিটার সড়ক, ১.৫ মিটার প্রশস্ত ফুটপাত, ৪.৫ মিটার প্রশস্ত প্রাইমারী ড্রেন, দশমিক ৮০০ মিটার টারশিয়ারী ড্রেন, সাইডপোস্ট প্রাইমারী ড্রেন ও ৫টি কালভার্ট নির্মাণ করা হবে। প্রকল্পের কাজ শেষ হলে উক্ত এলাকা যোগাযোগ ব্যবস্থা ও আর্থসমাজিক অবস্থার উন্নীত ঘটবে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, রাজশাহীর মহানগরীর সরু রাস্তাগুলো প্রশস্ত করা হচ্ছে। যার সুফল পাচ্ছেন নগরবাসী। প্রশস্ত রাস্তা হওয়ায় নাগরিকদের স্বাচ্ছন্দ্যে চলাচল নিশ্চিত হওয়ার পাশাপাশি অত্র এলাকার আর্থসামাজিক অবস্থার উন্নীত হচ্ছে। বর্তমানে সড়ক যোগযোগ ও পরিচ্ছন্নতায় দেশের সেরা শহরে পরিণত হয়েছে রাজশাহী।
মেয়র আরো বলেন, রাজশাহীর পদ্মারকে ঘিরে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। প্রকল্পটি পাস হলে সেটি রাজশাহী শহরের জন্য আলাদা আকর্ষণ হবে। রাজশাহীতে নদী বন্দর করা হবে।
তিনি আরো বলেন, রাজশাহীতে কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে শিল্পকারখানা স্থাপনের কাজ এগিয়ে চলেছে। বিসিক শিল্পনগরী-২ প্রকল্পের কাজ শেষ পর্যায়য়ে, প্লট বরাদ্দের অপেক্ষায় রয়েছে। এছাড়া চামড়া শিল্প পার্ক স্থাপনের অনুমতি দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এগুলো চালু হলে অনেক কর্মসংস্থান হবে।
অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ৩০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম পিন্টু, মতিহার থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. আব্দুল মান্নান ও প্রকল্প পরিচালক নূর ইসলাম তুষার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিটি কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম, নগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আহসানুল হক পিন্টু, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ডন এন্টারপ্রাইজের সত্ত¡াধিকারী মোঃ হারুন-উর রশীদ, নগর আওয়ামী লীগের সদস্য জাহের উদ্দিন তেতু, মতিহার থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলাউদ্দিন, মহানগর ছাত্রলীগ সভাপতি নূর মোহাম্মদ সিয়াম, ২৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক কাউন্সিলর জাহের উদ্দিন সুজা, ২৮নং ওয়ার্ড (পশ্চিম) আওয়ামী লীগের সভাপতি আনন্দ কুমার ঘোষ, ২৮নং ওয়ার্ড (পূর্ব) আওয়ামী লীগের সভাপতি মোকছেদ আলী, ২৯নং ওয়ার্ড (উত্তর) আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হান্নান, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আব্দুর রশীদ, রাসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী সুব্রত কুমার সরকার, নির্বাহী প্রকৌশলী মাহমুদুর রহমান, সহকারী প্রকৌশলী সৈয়দ সাঈদ আহমেদ, উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফররুখ আহমেদ, শাবাব আহমেদ, কার্য সহকারী প্রবীর কুমার দাস ও শাওন হাসান প্রমুখ।

জনপ্রিয় সংবাদ

পায়রা বন্দর পরিদর্শন এবং বন্দর কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তাদের সাথে রাসিক মেয়রের মতবিনিময়

রাজশাহীর মহানগরীর সরু রাস্তাগুলো প্রশস্ত করা হচ্ছে

চৌদ্দপাই হতে শ্যামপুর বাঁধ পর্যন্ত ফুটপাতসহ কার্পেটিং সড়ক, প্রাইমারী ড্রেন ও কালভার্ট নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

আপডেট সময় ০৭:৫৩:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৫ মার্চ ২০২২

রাজশাহী মহানগরীর সমন্বিত নগর অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় চৌদ্দপাই ফায়ার সার্ভিস মোড় হতে শ্যামপুর বাঁধ পর্যন্ত ফুটপাতসহ কার্পেটিং সড়ক প্রাইমারী ড্রেন ও কালভার্ট নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে চৌদ্দপাই ফায়ার সার্ভিস মোড়ে ফলক উন্মোচনের মাধ্যমে এ কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।
এ প্রকল্পের আওতায় চৌদ্দপাই ফায়ার সার্ভিস মোড় হতে শ্যামপুর বাঁধ পর্যন্ত ফুটপাতসহ কার্পেটিং সড়ক প্রাইমারী ড্রেন ও কালভার্ট নির্মাণ কাজে ব্যয় ধরা হয়েছে ২৩ কোটি ৫৬লাখ ৮৭ হাজার ৫২২টাকা। প্রকল্পের আওতায় ১২.৬মিটার প্রশস্ত দেড় কিলোমিটার সড়ক, ১.৫ মিটার প্রশস্ত ফুটপাত, ৪.৫ মিটার প্রশস্ত প্রাইমারী ড্রেন, দশমিক ৮০০ মিটার টারশিয়ারী ড্রেন, সাইডপোস্ট প্রাইমারী ড্রেন ও ৫টি কালভার্ট নির্মাণ করা হবে। প্রকল্পের কাজ শেষ হলে উক্ত এলাকা যোগাযোগ ব্যবস্থা ও আর্থসমাজিক অবস্থার উন্নীত ঘটবে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, রাজশাহীর মহানগরীর সরু রাস্তাগুলো প্রশস্ত করা হচ্ছে। যার সুফল পাচ্ছেন নগরবাসী। প্রশস্ত রাস্তা হওয়ায় নাগরিকদের স্বাচ্ছন্দ্যে চলাচল নিশ্চিত হওয়ার পাশাপাশি অত্র এলাকার আর্থসামাজিক অবস্থার উন্নীত হচ্ছে। বর্তমানে সড়ক যোগযোগ ও পরিচ্ছন্নতায় দেশের সেরা শহরে পরিণত হয়েছে রাজশাহী।
মেয়র আরো বলেন, রাজশাহীর পদ্মারকে ঘিরে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। প্রকল্পটি পাস হলে সেটি রাজশাহী শহরের জন্য আলাদা আকর্ষণ হবে। রাজশাহীতে নদী বন্দর করা হবে।
তিনি আরো বলেন, রাজশাহীতে কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে শিল্পকারখানা স্থাপনের কাজ এগিয়ে চলেছে। বিসিক শিল্পনগরী-২ প্রকল্পের কাজ শেষ পর্যায়য়ে, প্লট বরাদ্দের অপেক্ষায় রয়েছে। এছাড়া চামড়া শিল্প পার্ক স্থাপনের অনুমতি দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এগুলো চালু হলে অনেক কর্মসংস্থান হবে।
অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ৩০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম পিন্টু, মতিহার থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. আব্দুল মান্নান ও প্রকল্প পরিচালক নূর ইসলাম তুষার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিটি কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম, নগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আহসানুল হক পিন্টু, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ডন এন্টারপ্রাইজের সত্ত¡াধিকারী মোঃ হারুন-উর রশীদ, নগর আওয়ামী লীগের সদস্য জাহের উদ্দিন তেতু, মতিহার থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলাউদ্দিন, মহানগর ছাত্রলীগ সভাপতি নূর মোহাম্মদ সিয়াম, ২৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক কাউন্সিলর জাহের উদ্দিন সুজা, ২৮নং ওয়ার্ড (পশ্চিম) আওয়ামী লীগের সভাপতি আনন্দ কুমার ঘোষ, ২৮নং ওয়ার্ড (পূর্ব) আওয়ামী লীগের সভাপতি মোকছেদ আলী, ২৯নং ওয়ার্ড (উত্তর) আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হান্নান, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আব্দুর রশীদ, রাসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী সুব্রত কুমার সরকার, নির্বাহী প্রকৌশলী মাহমুদুর রহমান, সহকারী প্রকৌশলী সৈয়দ সাঈদ আহমেদ, উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফররুখ আহমেদ, শাবাব আহমেদ, কার্য সহকারী প্রবীর কুমার দাস ও শাওন হাসান প্রমুখ।