ঢাকা ১২:১৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঘোড়া পায়ে হেঁটে নিজেই হাজির হলো থানায়।

ফাইল ছবি

নোয়াখালী বাউফল উপজেলায় একটি ঘোড়া পায়ে ক্ষত অবস্থায় নিজেই পায়ে হেঁটে থানা যায়।
শুক্রবার দুপুরের দিকে একটি ঘোড়া থানার প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশ করে।
পরে ঘোড়াটি মূল ভবনের ভেতরে ঢোকার সময় কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যরা চোখে পড়লে ঘোড়াটিকে বাঁধা দেয়।
, ঘোড়াটি পুলিশ সদস্যের বাঁধা উপেক্ষা করে ডিউটি অফিসারের কক্ষের সামনে এসে দাঁড়ায়। এসময় কর্তব্যরত অফিসারসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা ঘোড়া টিকে  তাড়ানোর চেষ্টা করে । ঘোড়াটি  তারাতে পুলিশ সদস্যরা   ব্যর্থ হন।

থানার ডিউটি কর্মকর্তা উপ পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) আশিকুর রহমান বলেন, আমরা ঘোড়াটি তাড়ানোর চেষ্টা করছিলাম। যখন দেখলাম সরছে না, তখন লক্ষ্য করলাম ঘোড়ার পিছনের বাঁ পা দিয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে। পরে বিষয়টি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে জানানো হয়।
এরপর ওসি আল মামুন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ঘোড়াটির প্রয়োজনীয় চিকিৎসার নির্দেশ দেন।

বাউফল উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসের উপসহকারী প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা আ. আজিজ বলেন, ঘোড়াটির ক্ষত দেখে মনে হয়েছে ধারালো কোন কিছুর আঘাত লেগেছে। যার কারনে পায়ের চামড়া উঠে মাংস ক্ষত হয়েছে। এরপর ঘোড়াটির ক্ষতস্থান ড্রেসিং করে ব্যথানাশক ইনজেকশনসহ বিভিন্ন ওষুধ লাগিয়ে দেওয়া হয়। পরে ঘোড়াটি কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকে  সুস্থতা বোধ করলে নিজেই থানার থেকে বেড়িয়ে যায়।

জনপ্রিয় সংবাদ

মোহনপুর উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আল মোমেন শাহ  গাবরুর নির্বাচনীয় বিশাল জনসভা অনুষ্ঠিত হয় 

ঘোড়া পায়ে হেঁটে নিজেই হাজির হলো থানায়।

আপডেট সময় ০১:২৭:৩৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ৭ মার্চ ২০২২

নোয়াখালী বাউফল উপজেলায় একটি ঘোড়া পায়ে ক্ষত অবস্থায় নিজেই পায়ে হেঁটে থানা যায়।
শুক্রবার দুপুরের দিকে একটি ঘোড়া থানার প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশ করে।
পরে ঘোড়াটি মূল ভবনের ভেতরে ঢোকার সময় কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যরা চোখে পড়লে ঘোড়াটিকে বাঁধা দেয়।
, ঘোড়াটি পুলিশ সদস্যের বাঁধা উপেক্ষা করে ডিউটি অফিসারের কক্ষের সামনে এসে দাঁড়ায়। এসময় কর্তব্যরত অফিসারসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা ঘোড়া টিকে  তাড়ানোর চেষ্টা করে । ঘোড়াটি  তারাতে পুলিশ সদস্যরা   ব্যর্থ হন।

থানার ডিউটি কর্মকর্তা উপ পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) আশিকুর রহমান বলেন, আমরা ঘোড়াটি তাড়ানোর চেষ্টা করছিলাম। যখন দেখলাম সরছে না, তখন লক্ষ্য করলাম ঘোড়ার পিছনের বাঁ পা দিয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে। পরে বিষয়টি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে জানানো হয়।
এরপর ওসি আল মামুন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ঘোড়াটির প্রয়োজনীয় চিকিৎসার নির্দেশ দেন।

বাউফল উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসের উপসহকারী প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা আ. আজিজ বলেন, ঘোড়াটির ক্ষত দেখে মনে হয়েছে ধারালো কোন কিছুর আঘাত লেগেছে। যার কারনে পায়ের চামড়া উঠে মাংস ক্ষত হয়েছে। এরপর ঘোড়াটির ক্ষতস্থান ড্রেসিং করে ব্যথানাশক ইনজেকশনসহ বিভিন্ন ওষুধ লাগিয়ে দেওয়া হয়। পরে ঘোড়াটি কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকে  সুস্থতা বোধ করলে নিজেই থানার থেকে বেড়িয়ে যায়।