ঢাকা ০২:৫৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষ্যে রাজশাহী-২ আসনের সংসদ সদস্যের বাণী

ঐতিহাসিক ৭ মার্চ দিবস উপলক্ষ্যে বাণী

ঐতিহাসিক ৭ মার্চ দিবস উপলক্ষ্যে বাণী দিয়েছেন রাজশাহী-২ (সদর) আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান বাদশা।
বাণীতে মাননীয় সংসদ সদস্য বলেন, একাত্তর সালের এই দিনে মুক্তিকামী বাঙালী জাতিকে মুক্তির বাণী শুনিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বাঙালীর পরাধীনতার শৃঙ্খল ভাঙ্গার চূড়ান্ত  প্রেরণা। বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের সেই ভাষণেরই পরিণতি স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ।
মাননীয় সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান বাদশা বলেন, বঙ্গবন্ধুর মাত্র ১৯ মিনিটের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ সেই ভাষণের আবেদন আজও এতটুকু কমেনি। প্রজন্মের পর প্রজন্মের কাছে এই ভাষণ প্রেরণার উৎস। যতদিন যাবে নতুন প্রজন্মের কাছে ৭ মার্চের ভাষণ অনুপ্রেরণার সারথি হিসেবে কাজ করবে। স্বাধীনতার ডাক সংবলিত বজ্রকঠিন বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক সেই ভাষণটিই আজ পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ ভাষণের স্বীকৃতি পেয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণকে বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে জাতিসংঘের শিক্ষা বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো। ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর ইউনেস্কো ৭ মার্চের ভাষণকে ‘ডকুমেন্টারি হেরিটেজ’ (বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য) হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। এ ভাষণ বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি পাওয়ায় বাংলাদেশের মানুষের গৌরব-সম্মান আরেকবার আন্তর্জাতিকভাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তাই বাঙালী জাতি কৃতজ্ঞ চিত্তে আজীবন স্মরণ করবে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে তার স্বপ্ন সারথী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার  নেতৃত্বে একটি অসাম্প্রদায়িক ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়ে তুলতে কাজ করে যেতে চাই।

আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে – ডেপুটি স্পীকার

ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষ্যে রাজশাহী-২ আসনের সংসদ সদস্যের বাণী

আপডেট সময় ০৭:৪৩:১৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪

ঐতিহাসিক ৭ মার্চ দিবস উপলক্ষ্যে বাণী দিয়েছেন রাজশাহী-২ (সদর) আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান বাদশা।
বাণীতে মাননীয় সংসদ সদস্য বলেন, একাত্তর সালের এই দিনে মুক্তিকামী বাঙালী জাতিকে মুক্তির বাণী শুনিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বাঙালীর পরাধীনতার শৃঙ্খল ভাঙ্গার চূড়ান্ত  প্রেরণা। বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের সেই ভাষণেরই পরিণতি স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ।
মাননীয় সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান বাদশা বলেন, বঙ্গবন্ধুর মাত্র ১৯ মিনিটের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ সেই ভাষণের আবেদন আজও এতটুকু কমেনি। প্রজন্মের পর প্রজন্মের কাছে এই ভাষণ প্রেরণার উৎস। যতদিন যাবে নতুন প্রজন্মের কাছে ৭ মার্চের ভাষণ অনুপ্রেরণার সারথি হিসেবে কাজ করবে। স্বাধীনতার ডাক সংবলিত বজ্রকঠিন বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক সেই ভাষণটিই আজ পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ ভাষণের স্বীকৃতি পেয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণকে বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে জাতিসংঘের শিক্ষা বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো। ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর ইউনেস্কো ৭ মার্চের ভাষণকে ‘ডকুমেন্টারি হেরিটেজ’ (বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য) হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। এ ভাষণ বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি পাওয়ায় বাংলাদেশের মানুষের গৌরব-সম্মান আরেকবার আন্তর্জাতিকভাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তাই বাঙালী জাতি কৃতজ্ঞ চিত্তে আজীবন স্মরণ করবে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে তার স্বপ্ন সারথী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার  নেতৃত্বে একটি অসাম্প্রদায়িক ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়ে তুলতে কাজ করে যেতে চাই।