ঢাকা ১০:৩৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আসন্ন ঈদে এক কোটি মানুষ রাজধানী ছাড়বেন

ঈদের আগেই অর্ধেক পরিবারকে ঢাকা ছাড়ার পরামর্শ।

ফাইল ছবি

মাত্র দুই সপ্তাহ পরেই মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর। পরিবার-পরিজনের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে এ সময়ে রাজধানী থেকে গ্রামে ছুটে যাবেন লাখ লাখ মানুষ। কিন্তু এ সময় তীব্র যানজট আর সড়কে নানা ঝক্কি-ঝামেলায় চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয় মানুষকে। তাই ভোগান্তি কমাতে আগে-ভাগেই ঢাকা ছাড়ার পরামর্শ দিয়েছেন বুয়েটের অধ্যক্ষ ও দুর্ঘটনা গবেষণা প্রতিষ্ঠানের পরিচালক ড. মোহম্মদ হাদিউজ্জামান।

রোববার (১৭ এপ্রিল) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ পরামর্শ দেন।

তিনি বলেন, ঈদকে সামনে রেখে গড়ে প্রতিদিন ৩০ লাখ মানুষ ঢাকা ছেড়ে যান। কিন্তু পরিবহনগুলোর যাত্রী পরিবহনের সক্ষমতা রয়েছে মাত্র ১৫ লাখ। তাই ঢাকায় বিশেষ কোনো কাজ না থাকলে পরিবারের অর্ধেক সদস্যের ২০ রোজার পরপরই ঢাকা ছেড়ে যাওয়া ভালো। এতে ভোগান্তি কমবে। আর যাদের কাজ রয়েছে তাদের ২৭ রোজার মধ্যে ঢাকা ছাড়ার পরামর্শ দেন তিনি।

হাদিউজ্জামান বলেন, যে ৩০ লাখ মানুষ ঢাকা ছাড়বেন তারমধ্যে বাসে ৮ লাখ, ট্রেনে ১ লাখ, লঞ্চে দেড় লাখ, ব্যক্তিগত গাড়িতে চার লাখ ও বাইক রাইড করে চার লাখ লোক ঢাকা ছাড়বেন। বাকি ১৫ লাখ লোক ঝুঁকি নিয়ে কভার্ড ভ্যান, ট্রেনের ছাদেসহ বিভিন্ন উপায়ে গ্রামের বাড়ি যাওয়ার চেষ্টা করবেন।

যাত্রী কল্যাণ সমিতির ধারণা, আসন্ন ঈদে এক কোটি মানুষ রাজধানী ছাড়বেন। অন্যদিকে, এক জেলা থেকে অন্য জেলায় যাতায়াত করবেন আরও অন্তত ৫ কোটি মানুষ।

রাজশাহীতে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ শীর্ষক আলোচনা সভা

আসন্ন ঈদে এক কোটি মানুষ রাজধানী ছাড়বেন

ঈদের আগেই অর্ধেক পরিবারকে ঢাকা ছাড়ার পরামর্শ।

আপডেট সময় ০৪:০১:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২২

মাত্র দুই সপ্তাহ পরেই মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর। পরিবার-পরিজনের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে এ সময়ে রাজধানী থেকে গ্রামে ছুটে যাবেন লাখ লাখ মানুষ। কিন্তু এ সময় তীব্র যানজট আর সড়কে নানা ঝক্কি-ঝামেলায় চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয় মানুষকে। তাই ভোগান্তি কমাতে আগে-ভাগেই ঢাকা ছাড়ার পরামর্শ দিয়েছেন বুয়েটের অধ্যক্ষ ও দুর্ঘটনা গবেষণা প্রতিষ্ঠানের পরিচালক ড. মোহম্মদ হাদিউজ্জামান।

রোববার (১৭ এপ্রিল) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ পরামর্শ দেন।

তিনি বলেন, ঈদকে সামনে রেখে গড়ে প্রতিদিন ৩০ লাখ মানুষ ঢাকা ছেড়ে যান। কিন্তু পরিবহনগুলোর যাত্রী পরিবহনের সক্ষমতা রয়েছে মাত্র ১৫ লাখ। তাই ঢাকায় বিশেষ কোনো কাজ না থাকলে পরিবারের অর্ধেক সদস্যের ২০ রোজার পরপরই ঢাকা ছেড়ে যাওয়া ভালো। এতে ভোগান্তি কমবে। আর যাদের কাজ রয়েছে তাদের ২৭ রোজার মধ্যে ঢাকা ছাড়ার পরামর্শ দেন তিনি।

হাদিউজ্জামান বলেন, যে ৩০ লাখ মানুষ ঢাকা ছাড়বেন তারমধ্যে বাসে ৮ লাখ, ট্রেনে ১ লাখ, লঞ্চে দেড় লাখ, ব্যক্তিগত গাড়িতে চার লাখ ও বাইক রাইড করে চার লাখ লোক ঢাকা ছাড়বেন। বাকি ১৫ লাখ লোক ঝুঁকি নিয়ে কভার্ড ভ্যান, ট্রেনের ছাদেসহ বিভিন্ন উপায়ে গ্রামের বাড়ি যাওয়ার চেষ্টা করবেন।

যাত্রী কল্যাণ সমিতির ধারণা, আসন্ন ঈদে এক কোটি মানুষ রাজধানী ছাড়বেন। অন্যদিকে, এক জেলা থেকে অন্য জেলায় যাতায়াত করবেন আরও অন্তত ৫ কোটি মানুষ।