ঢাকা ০৮:৩৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আমদানির ধাক্কায় কমেছে  আলু ও পেঁয়াজের দাম

কমেছে  আলু ও পেঁয়াজের দাম

ভারত থেকে আলু-পেঁয়াজ আমদানির প্রভাবে দুদিনেই পাল্টে গেছে রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের  পাইকারি ও খুচরা বাজারের চিত্র ।
গেল দু’দিনে প্রতি কেজিতে কমেছে আলুর দাম ১২ থেকে ১৫টাকা, পেঁয়াজের দাম ২৮ থেকে ৩২ টাকা । ৬ অক্টোবর সকালে রাজশাহীর বাজারে পাইকারি ও খুচরা দোকানে কমতি এ দামে বেচা বিক্রি দেখা যায় ।
রাজশাহীর বাজারে দেশীয় আলুর দাম মাত্র দুদিনের ব্যবধানে কেজি প্রতি ১২-১৫ টাকা কমে দেশী আলু বিক্রি হচ্ছে ৪০-৪২ টাকায় । আর ভারত থেকে আমদানি করা আলু বিক্রি হচ্ছে ৩৬-৩৮ টাকায়।
অন্যদিকে পেয়াজের দামও দুদিনের ব্যবধানে কমেছে অন্তত কেজিতে ২৫ থেকে ৩০ টাকা। দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১১০থেকে১২০ টাকা কেজি দরে । আর ভারতীয় পেয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৬০-৬৫ টাকায়।
আমদানিকারক ও পাইকারি বিক্রেতা জোহরুল ইসলাম জানান, ভারতীয় আলু আমদানির দুদিন আগেও দেশি আলু ছিল ৫০ টাকা কেজি আড়তে । এখন তা ১০ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকায়। আর ভারতীয় আলু ৩৩ থেকে৩৪ টাকায়।
খুচরো আলু বিক্রেতা মামুন জানান, দেশী আলু বিক্রি করছেন ৪০-৪২ টাকায় । আর ভারতীয় আলু বিক্রি করছেন ৩৬-৩৮ টাকা কেজি ।
পেঁয়াজের পাইকারি বিক্রেতা আনারুল ইসলাম জানান, দু’চার দিন আগে ছিল, ভারতীয় পেঁয়াজ ৯০-৯৫ টাকা কেজি। এখন তা কমে ৫০-৭০ টাকা কেজি । পেয়াঁজের খুচরো বিক্রেতা মনিরুল জানান, এখন দেশি পেঁয়াজ ১১০ – ১২০ টাকা আর ভারতীয় পেঁয়াজ ৬০-৬৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছেন ।
বিক্রেতারা বলছেন,আলু ও পেঁয়াজ আমদানী অব্যাহত থাকলে আলুর দাম আরো কমে কেজি প্রতি অন্তত ৩০ টাকা হবে। অন্যদিকে পেয়াজের দাম আরো কিছুটা কমতে পারে ।
তবে ভারত থেকে আসা আলুর বস্তায় ছোট ও কাটা ফাঁটা আলু থাকায় কিছুটা অসন্তোষ আছে ব্যবসায়ীদের।
চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনামসজিদ স্থল বন্দর কাস্টমের ডেপুটি কমিশনার প্রভাত কুমার সিংহ জানান, শুক্র ও শনিবার দুদিনে ২১ টি ট্রাকে ৫৬৮ মেট্রিক টন আলু এসেছে ভারত থেকে। এ ছাড়াও শনিবার এ বন্দর দিয়ে ৫১টি ট্রাকে ১৪৫৩ মেট্রিক টন পেয়াজও আমদানী হয়েছে।
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে – ডেপুটি স্পীকার

আমদানির ধাক্কায় কমেছে  আলু ও পেঁয়াজের দাম

আপডেট সময় ০২:৫৬:২৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ নভেম্বর ২০২৩
ভারত থেকে আলু-পেঁয়াজ আমদানির প্রভাবে দুদিনেই পাল্টে গেছে রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের  পাইকারি ও খুচরা বাজারের চিত্র ।
গেল দু’দিনে প্রতি কেজিতে কমেছে আলুর দাম ১২ থেকে ১৫টাকা, পেঁয়াজের দাম ২৮ থেকে ৩২ টাকা । ৬ অক্টোবর সকালে রাজশাহীর বাজারে পাইকারি ও খুচরা দোকানে কমতি এ দামে বেচা বিক্রি দেখা যায় ।
রাজশাহীর বাজারে দেশীয় আলুর দাম মাত্র দুদিনের ব্যবধানে কেজি প্রতি ১২-১৫ টাকা কমে দেশী আলু বিক্রি হচ্ছে ৪০-৪২ টাকায় । আর ভারত থেকে আমদানি করা আলু বিক্রি হচ্ছে ৩৬-৩৮ টাকায়।
অন্যদিকে পেয়াজের দামও দুদিনের ব্যবধানে কমেছে অন্তত কেজিতে ২৫ থেকে ৩০ টাকা। দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১১০থেকে১২০ টাকা কেজি দরে । আর ভারতীয় পেয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৬০-৬৫ টাকায়।
আমদানিকারক ও পাইকারি বিক্রেতা জোহরুল ইসলাম জানান, ভারতীয় আলু আমদানির দুদিন আগেও দেশি আলু ছিল ৫০ টাকা কেজি আড়তে । এখন তা ১০ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকায়। আর ভারতীয় আলু ৩৩ থেকে৩৪ টাকায়।
খুচরো আলু বিক্রেতা মামুন জানান, দেশী আলু বিক্রি করছেন ৪০-৪২ টাকায় । আর ভারতীয় আলু বিক্রি করছেন ৩৬-৩৮ টাকা কেজি ।
পেঁয়াজের পাইকারি বিক্রেতা আনারুল ইসলাম জানান, দু’চার দিন আগে ছিল, ভারতীয় পেঁয়াজ ৯০-৯৫ টাকা কেজি। এখন তা কমে ৫০-৭০ টাকা কেজি । পেয়াঁজের খুচরো বিক্রেতা মনিরুল জানান, এখন দেশি পেঁয়াজ ১১০ – ১২০ টাকা আর ভারতীয় পেঁয়াজ ৬০-৬৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছেন ।
বিক্রেতারা বলছেন,আলু ও পেঁয়াজ আমদানী অব্যাহত থাকলে আলুর দাম আরো কমে কেজি প্রতি অন্তত ৩০ টাকা হবে। অন্যদিকে পেয়াজের দাম আরো কিছুটা কমতে পারে ।
তবে ভারত থেকে আসা আলুর বস্তায় ছোট ও কাটা ফাঁটা আলু থাকায় কিছুটা অসন্তোষ আছে ব্যবসায়ীদের।
চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনামসজিদ স্থল বন্দর কাস্টমের ডেপুটি কমিশনার প্রভাত কুমার সিংহ জানান, শুক্র ও শনিবার দুদিনে ২১ টি ট্রাকে ৫৬৮ মেট্রিক টন আলু এসেছে ভারত থেকে। এ ছাড়াও শনিবার এ বন্দর দিয়ে ৫১টি ট্রাকে ১৪৫৩ মেট্রিক টন পেয়াজও আমদানী হয়েছে।